বাংলাদেশ: সোমবার ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৩ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি

  বাংলাদেশ: সোমবার ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৩ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি  

শেষ আপডেটঃ ১:৫২ পিএম

আইডায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪৬, বাইডেনের আশ্বাস

যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে হারিকেন আইডা ও বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৬। কেবল নিউজার্সিতেই মারা গেছে অন্তত ২৩ জন। এ ছাড়া পেনসিলভানিয়া, মেরিল্যান্ড, ভার্জিনিয়ায় ও নিউইয়র্কেও প্রাণ হারিয়েছেন বেশ কয়েকজন।

এদিকে শুক্রবার, হারিকেন আইডায় বিধ্বস্ত লুইজিয়ানা পরিদর্শন করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। এ সময় ক্ষতিগ্রস্তদের অবিলম্বে পুনর্বাসনের আশ্বাস দেন তিনি।

হারিকেন আইডার আঘাতে লণ্ডভণ্ড যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর-পূর্বাঞ্চল। অবিরাম বৃষ্টিপাত এবং তুমুল ঝড়ে বিপর্যস্ত অন্তত ১০ লাখ মানুষের জনজীবন।

এর মধ্যেই শুক্রবার, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ক্ষতিগ্রস্ত অঙ্গরাজ্য লুইজিয়ানা পরিদর্শনে যান। এ সময় তিনি সংকট মোকাবিলায় সবাইকে একযোগে কাজ করার আহ্বান জানান। দেশটিতে চলমান প্রাকৃতিক দুর্যোগের এই চরম পরিস্থিতি মোকাবিলাকে কঠিন চ্যালেঞ্জ বলে উল্লেখ করেন বাইডেন।

এ ছাড়া বাইডেন জলবায়ু সংকট ও হারিকেন আইডার ক্ষয়ক্ষতির বিষয়ে লুইজিয়ানার গভর্নর বেল এডওয়ার্ডের সঙ্গেও আলোচনা করেন।

লুইজিয়ানার গভর্নর জন বেল এডওয়ার্ড বলেন, এটা খুবই ভয়াবহ ঝড় ছিল। আমরা ক্ষতি কাটিয়ে উঠার চেষ্টা করছি। আমাদের কাছে মানুষের জীবন সবার আগে।

এর আগে, হোয়াইট হাউসে এক সংবাদ সম্মেলনে চলমান বন্যা, লুইজিয়ানা, মিসিসিপি অঙ্গরাজ্যে আইডার আঘাত ও জলবায়ু সমস্যা সমাধানে পরিকল্পনা অনুযায়ী কাজ করার কথা জানান বাইডেন। প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলায় নিজের পরিকল্পনার কথা মার্কিন কংগ্রেসে তুলে ধরবেন বলেও জানান তিনি।

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক ও নিউজার্সিতে আকস্মিক বন্যায় অন্তত ৪৫ জন মারা গেছে। স্থানীয় সময় বুধবার রাতে প্রচণ্ড বৃষ্টির কারণে দেশটির পূর্ব উপকূলে ইতিহাসের সবচেয়ে ভয়াবহ বন্যা দেখা দেয়। দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে নিউইয়র্ক ও নিউজার্সি অঙ্গরাজ্যে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন হাজারো বাংলাদেশি।

মাত্র ছয় ঘণ্টার বৃষ্টি। বুধবার রাতের আধারে ভয়াবহ দুর্যোগ নেমে আসে যুক্তরাষ্ট্রের পূর্ব উপকূলে। নিউইয়র্কের সাবওয়ে, বিমানবন্দর, রাস্তাঘাট, বাড়িঘর, সবকিছু পানিতে তলিয়ে যায়। একই পরিস্থিতি পার্শ্ববর্তী অঙ্গরাজ্য নিউজার্সিতেও। আকস্মিক বন্যায় নিউইয়র্ক, নিউজার্সি, কানেকটিকাট, পেনসিলভেনিয়া, মেরিল্যান্ড ও ভার্জিনিয়ায় প্রাণ হারিয়েছেন অনেকে। দুটি অঙ্গরাজ্যে জারি করা হয়েছে জরুরি অবস্থা। দেশটির ইতিহাসে অন্তত আড়াইশ’ বছরে এমন বন্যা পরিস্থিতি দেখেনি কেউ।

একজন ভুক্তভোগী বলেন, আমরা কেউ কোনোদিন এমন পরিস্থিতির মুখোমুখি হইনি। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে এমন পরিস্থিতি আরও সৃষ্টি হতে পারে।

আরেকজন প্রবাসী বাংলাদেশি বলেন, আমার বাসার বেসমেন্টে কোমর পর্যন্ত পানি ছিল। আমার সবকিছু নষ্ট হয়ে গেছে।

উত্তর আমেরিকায় সবচেয়ে বেশিসংখ্যক বাংলাদেশি বসবাস করেন পূর্ব উপকূলীয় অঞ্চলে। আকস্মিক বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন এসব এলাকার হাজার হাজার বাংলাদেশিও।

হারিকেন আইডার প্রভাবে সৃষ্ট বন্যায় এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর। গত রোববার লুইজিয়ানায় আঘাত হানা শক্তিশালী চার মাত্রার হারিকেনটি দুর্বল হয়ে বুধবার রাতে যুক্তরাষ্ট্র অতিক্রম করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *