বাংলাদেশ: শুক্রবার ১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
২রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১০ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি

  বাংলাদেশ: শুক্রবার ১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১০ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি  

শেষ আপডেটঃ ১০:৪৭ পিএম

আন্দিজ পর্বতমালার জানা-অজানা

একটি বিশাল পর্বতমালা আন্দিজ যেটা অবস্থিত দক্ষিণ আমেরিকায়। বহু পার্বত্য অঞ্চল একসাথে সম্পৃক্ত হয়ে এই পর্বতমালা গড়ে ওঠার কারণে এখানে রয়েছে অভাবনীয় সব প্রাকৃতিক বৈচিত্র। এটি পৃথিবীর সবচেয়ে দীর্ঘতম ও বৈচিত্র্যময় পর্বত। দক্ষিণ আমেরিকার প্রায় সম্পূর্ণ পশ্চিম উপকূলীয় অঞ্চল জুড়ে বিস্তৃত আন্দিজ পর্বতমালা। ধারণা করা হয় প্রায় ৫ কোটি বছর আগে দক্ষিণ আমেরিকা ও প্রশান্ত টেকটনিক প্লেটের সংঘর্ষের ফলে এই পর্বতমালার সৃষ্টি হয়েছে।

আন্দিজ পর্বতমালার দৈর্ঘ্য প্রায় ৭২৪২ কিলোমিটার। আর অন্য কোথাও এত দীর্ঘ পাহাড়ের সারি দেখতে পাওয়া যায় না। তাই এই পর্বতমালা পৃথিবীর সবচেয়ে দীর্ঘতম পর্বতমালা হিসেবে বিবেচিত করা হয়। এই পর্বতমালা প্রস্থ প্রায় ৮০০ কিলোমিটার এবং আন্দিজের গড় উচ্চতা প্রায় ১৩ হাজার ফুট। গবেষকদের ধারণা আরো আগে এখানে মানুষ বাস করলেও তাদের কোনো চিহ্ন পাওয়া যায়নি ও এত উঁচুতে অক্সিজেনের স্বল্পতা ও কঠিন পার্বত্য পরিবেশ মনুষ্য বসবাসের অনুউপযোগী। তারপরও অতীতে পাহাড়ে পশুপালন সমাজের লোকেরা প্রায় ১৭ হাজার ফুট উচ্চতায় নিজেদেরকে মানিয়ে নিয়েছিল বলে জানা যায়।

বিগত ১৫ শতকে পেরুর অন্তর্গত আন্দিজ অঞ্চলে উঠেছিল ইনকা সভ্যতা। এই সাভ্যতার একটি অনবদ্য সৃষ্টি দুর্গনগরী মাচুপিচু। ইনকা সভ্যতাটি বিশ্বের নতুন সপ্তাশ্চর্যের মধ্যে অন্যতম একটি। আন্দিজ পার্বত্য অঞ্চলের দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশের বহু বিখ্যাত শহর গড়ে উঠেছে। এই পর্বতমালায় থাকা উল্লেখযোগ্য শহর গুলো হলো পেরুর হোয়ারেজ এবং কোস্কো। ইকুয়েডরের কুইটো ও বানস, বলিভিয়ার লাপাজ, কলম্বিয়ার বোগোটা ও মেডিলিন, চিলির পুয়েত নাতালেস।

আন্দিজ পর্বতমালায় বহু খনিজ পদার্থের মজুদ আছে। পেরুতে অবস্থিত ইয়ানা কোচা পৃথিবীর বৃহত্তম একটি সোনার খনি। এছাড়া আন্দিজ পর্বতমালায় লক্ষ লক্ষ মেট্রিক টন তামা ও রুপা মজুদ আছে। উটের সমগোত্রীয় একাধিক প্রাণী এখানে রয়েছে। উটের সমগোত্রীয় প্রাণী গুলি হলো লামা, আলপাকা এবং ভিকুনি। আন্দিজের সবচেয়ে আলোচিত গাছ হলো কোকা। এই কোকা গাছের পাতা থেকেই কোকেন এর মত মাদক তৈরি করা হয়।

পাহাড়ি উচ্চতাজনিত শারীরিক সমস্যা এবং অবসাদ দূর করতে সমগ্র আন্দিজ পর্বত অঞ্চলে মানুষ বহু আগে থেকেই কোকা চা পান করে আসছেন। এই পাহাড়ের আর এক বিশেষ গাছ হলো সিনচোনা পিউবাসেন্স। এই গাছ থেকে কুইনিন প্রস্তুত করা হয়। অত্যন্ত তিক্ত স্বাদ যুক্ত কুইনিন ম্যালেরিয়া প্রতিরোধে, জ্বর কমাতে একটি কার্যকরী ঔষধ। এখানে আরো একটি আলোচিত জায়গা হলো সালার দি ইউনি। এখানকার এই চমকপ্রদ প্রাকৃতিক অঞ্চল বিশ্বের সর্ববৃহৎ লবণ সমভূমি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *