বাংলাদেশ: সোমবার ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৩ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি

  বাংলাদেশ: সোমবার ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৩ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি  

শেষ আপডেটঃ ১:৫২ পিএম

কুষ্টিয়ায় চলছে পাটের জাগ ও ধোয়ার কাজ, হতাশায় চাষীরা

কুষ্টিয়া জেলার মিরপুর উপজেলার পৌরসভাসহ ১৪টি ইউনিয়নে পাট চাষীদের চলছে পাট জাগ দেওয়া ও ধোয়ার কাজ, বর্তমান বাজারে পাটের মূল্য ভাল বলেও জানিয়েছেন চাষীবৃন্দ।এই সোনালী আঁশ তৈরীতে অজস্র শ্রম থাকলেও তারা তেমন কিছু মনে করতেন না , যদি পাট জাগ দেওয়া সু ব্যবস্থা থাকতো। তবে এ সমস্যা যে সবার তা নয়।

যাদের নেই কোন খার বা ডুবা তাদের ই বেশি সমস্যা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন চাষীদের অনেকেই দুঃখ করে বলেন পাট জাগ দেওয়ার জায়গার অভাবে অনেক পাট নষ্ট হয়ে যাওয়ার অতিক্সম হতে চলেছে, ঐ চাষীরা যেখানেই একটু পানি বা জলযুক্ত খাল বা ডুবা পাচ্ছে- সেখানেই কোন রকম মাটি চাপা নিয়েই পাট জাগ দিচ্ছে-যা অনেক পাট পুরা পানি পাচ্ছেনা। ফলন ও তেমন নেই আবার-পাটের কালার ও হচ্ছে না তারা বাজারে বিক্রয় করতে গেলে তেমন মূণ্য পাচ্ছেনা।এই সোনালী আঁশ আবাদ ও জাগ দেওয়ার বিষয় মিরপুর উপজেলা কৃষি অফিসার (কৃষীবিদ) রমেচ চন্দ্র ঘোষ চাষীদের প্রশিক্ষণের সময় বলেছেন আপনারা শুধু মাটি চাপা দিয়ে পাট জাগ না দিয়ে- বরং পানির মধ্যে আগে ভাল করে জায়গা তৈরী করবেন এর পরে-পাটের আটি (বোঝা) গোছালো করে তাঁর উপর পলিথিন দ্বারা ঢেকে দিবেন এবং পলিথিনের উপর মাটি দিয়ে পানি/ জলের মধ্যে পাট জাগ দিলে দেখবেন পচন শেষে পাটের আঁশ ও কালার খুব ভাল হয়েছে এবং ফলন ও ভাল হয়েছে এবং চড়া মূল্যে বিক্রয় করতে পারবেন। সকল চাষিকে বেশ ভার ভাবে বুঝিয়েছে এই কৃষিবিদ রমেচ চন্দ্র ঘোষ।

চাষীরা বলেন বর্তমানের ১ বিঘা (৩৩ শতক) জামিতে পাট চাষ করতে খরচ হচ্ছে প্রায় ৮০০০/= হাজার টাকা, এক বিঘা জামিতে উৎপাদন প্রায় ৮ থেকে ৯ মন। বর্তমান বাজারে মূল্য পাচ্ছে (১৮ থেকে ২০ হাজার টাকা) আঠারো থেকে বিষ হাজার টাকায়। তবে পাটের মূল্য যদি সরকার বাড়াতেন চাষীরা অনেক উপকৃত হতেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *