বাংলাদেশ: রবিবার ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১২ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি

  বাংলাদেশ: রবিবার ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১২ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি  

শেষ আপডেটঃ ১:৫২ পিএম

তামিমের সিদ্ধান্ত নিয়ে মাশরাফির আবেগঘন পোস্ট

বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচ নিয়ে যখন ক্রিকেটপ্রেমীদের দৃষ্টি মিরপুর শেরেবাংলায়, তখন ফেসবুকে এক ভিডিওবার্তা দিয়ে সবার নজর কেড়ে নিলেন ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল।

ভিডিওবার্তায় তামিম জানান, আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলা হচ্ছে না তার।

তামিমের এ সিদ্ধান্ত নিয়ে মিশ্রপ্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে ক্রিকেটাঙ্গনে। অনেকের মতে, নতুনদের জন্য জায়গা ছেড়ে দিয়ে তামিম উদারতা দেখিয়েছেন। অনেকে আবার এমন সিদ্ধান্তে বিতর্ক বা ষড়যন্ত্রের গন্ধ পেয়েছেন।

অনেকের মতো দেশসেরা ওপেনারের এ সিদ্ধান্ত মানতে পারছেন না সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজাও। তামিম বিশ্বকাপে খেলার যোগ্য ছিলেন বলেই মনে করেন তিনি।

বুধবার রাতে নিজের ফেসবুক পোস্টে তামিমকে নিয়ে আবেগঘন এক পোস্ট দিয়েছেন বাংলাদেশের সফলতম অধিনায়ক।

ফেসবুক পোস্টের শুরুতে মাশরাফি লিখেছেন, ‘ তামিম ইকবাল খান, আনডাউটলি বাংলাদেশের একজন সেরা ব্যাটসম্যান। স্ট্যাটসও তাই বলে। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলার সব যোগ্যতা তার আছে। ক্রিকেট বোর্ড, টিম ম্যানেজমেন্ট সবাই তাকে দলে রাখবে— এটি সবারই জানা। কেন তামিম এ সিদ্ধান্ত নিল তার যুক্তিও আছে অনেক। প্রথমত তামিমের ইনজুরি। তার পর প্রায় এই নিয়ে পেছনের চারটি টি-টোয়েন্টি সিরিজ সে খেলতে পারেনি। তার মানে প্রায় ১৬টা ম্যাচ, এতে হঠাৎ কোনো ম্যাচ না খেলে মাঠে নামার পর নিজের ওপর বিশাল চাপ সৃষ্টি হবে, যা পরে ওর ওয়ানডে বা টেস্টে ক্যারি করতে হতে পারে। কিন্তু কথা হলো— এখন যারা খেলছে, তারা তো রান করেনি। আবার সেখানেও কথা আছে। যে উইকেটে খেলা হচ্ছে, সেখানে রিয়াদ (মাহমুদউল্লাহ) ছাড়া আর কোনো দলের খেলোয়াড়ই ৫০ ছুঁতে পারেনি। ট্রু উইকেটে বিচার না করা একেবারেই অন্যায় হবে সৌম্য, লিটন বা নাঈমের সঙ্গে। সব কঠিন সিরিজগুলো সত্যিই এই ছেলেগুলো পার করছে।

অবশ্য তামিমের বিশ্বকাপ না খেলার সিদ্ধান্তটি তার পরবর্তী ক্যারিয়ারে ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে বলে মনে করেন মাশরাফি।

তার মতে, তরুণদের প্রতি তামিম যে উদারতা দেখিয়েছে, ওয়ানডেতে তারা সেটি পরিশোধে মরিয়া হয়ে খেলবে।

মাশরাফির লেখেন, কোনো কোনো সিদ্ধান্ত মানুষের জীবন পাল্টে দেয়। আমার কাছে মনে হয় এই সিদ্ধান্তের কারণে তামিম যখন ওয়ানডের নেক্সট ম্যাচেই ক্যাপ্টেন হিসেবে মাঠে নামবে, এই ছেলেগুলো ওর জন্য জীবনবাজি রেখে খেলবে। কারণ কেউ করুক আর না করুক তামিম নিজেই এই ছেলেগুলোর হার্ডওয়ার্ককে প্রপার জাস্টিফাই করেছে।

সবশেষে তামিমকে বিশ্বকাপে মিস করবেন বলে জানালেন মাশরাফি।

নড়াইল এক্সপ্রেসখ্যাত সাবেক তারকা লিখেছেন, আর তামিম স্টিল দ্য বেস্ট অ্যান্ড উইল বি রিমেইন ইনশাআল্লাহ। এই ফরম্যাটে জোর করে খেলে অবশ্যই টেস্ট, ওয়ানডের সেরা ব্যাটসম্যানকে আপসেট কেউ দেখতে চাইবে না। তামিমের এখনও অনেক ম্যাচ জেতানোর বাকি আছে। ইউ বিউটি খান, উইল বি মিস ইউ ইন ওয়ার্ল্ড কাপ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *