বাংলাদেশ: শনিবার ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
৩রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১১ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি

  বাংলাদেশ: শনিবার ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৩রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১১ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি  

শেষ আপডেটঃ ১১:৩০ পিএম

থাইরয়েড নিয়ন্ত্রণে ঘরোয়া উপায়

খ্রিস্টপূর্ব ২৭০০ তে চৈনিক ভাষায় গলগন্ড রোগ সংক্রান্ত লিপিতে থাইরয়েডের প্রথম বর্ণনা পাওয়া যায়। ১৬০০ খ্রিস্টপূর্ব সময়ে চীনে গলগন্ড রোগের চিকিৎসায় পোড়া স্পঞ্জ ও সামুদ্রিক শৈবাল ব্যবহার করা হত। এই চিকিৎসাপদ্ধতি পরে বিশ্বের অন্যান্য জায়গায়ও ব্যবহার করা হয়। থাইওয়েড গ্রন্থি বা থাইরয়েড হলো দুইটি লোব দ্বারা গঠিত একটি অন্তঃক্ষরা গ্রন্থি যার অবস্থান গ্রীবাতে। শরীরে পর্যাপ্ত পরিমাণে আয়োডিন না গেলে এই রোগের সমস্যাটি দেখা দিতে পারে। থাইরয়েড রোগের জন্য চিকিৎসকের পরামর্শের বাইরে আপনারা কিছু ঘরোয়া উপায় মেনে চলতে পারেন যা আপনার শরীরে বাসা বাঁধা থাইরয়েড নিমন্ত্রণ রাখতে সাহায্য করবে।

জেনে নিন থাইরয়েড নিয়ন্ত্রণে কিছু ঘরোয়া উপায়-

থাইরয়েডের সমস্যার নিয়ন্ত্রণে আনতে পালং শাক বেশ উপকারী। পালং শাক প্রচুর পরিমানে ভিটামিন-এ দ্বারা সমৃদ্ধ। থাইরয়েডের নিয়ন্ত্রণ এবং সমস্যার নিবারনে স্থিতি আনতে সাহায্য করে ভিটামিন-এ।

কেল্প একটি আয়োডিনসমৃদ্ধ সমুদ্র-শৈবাল, যা থাইরয়েড নিয়ন্ত্রণে ব্যবহৃত হয়। তাই স্যালাড বা সুপের সাথে মিশিয়ে, কেল্প আপনার প্রাত্যহিক খাদ্য তালিকায় রাখতে পারেন।

থাইরয়েড হরমোনের ক্ষরণ যখন বেড়ে যায় তখন ইস্ট্রোজেনের উৎপাদনও বৃদ্ধি পায়, যা থাইরয়েড গ্রন্থির ক্রিয়াকে বাধা দেয়। নারকেল তেল এই অতিরিক্ত মাত্রায় এস্ট্রোজেনের উৎপাদন কে কমিয়ে আনে এবং দেহের বিপাক ক্রিয়ার হার বাড়িয়ে তোলে। ফলে আপনার সঞ্চিত মেদ শক্তিতে রুপান্তরিত হয়ে যায়।

সাধারণ লবন আয়োডিন সমৃদ্ধ হয়ে থাকে, যা থাইরয়েড ক্ষরণকে নিয়ন্ত্রণে রাখে। ডিমের কসুম কপার সমৃদ্ধ হয়। কপার থাইরয়েড গ্রন্থির ক্রিয়াকে মসৃন রাখে ও থাইরয়েড হরমোনের ক্ষরণকে মসৃণ রাখতে সাহায্য করে। তাই থাইরয়েডের সমস্যাকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় ডিম রাখা যেতে পারে।

হলুদ একটি অন্যতম প্রচলিত মশলা। হলুদে ‘কারকিউমিন’ রয়েছে, যা থাইরয়েড গ্রন্থির প্রদাহ কমাতে সাহায্য করে। তাই থাইরয়েডের সমস্যার নিরাময়ে, হলুদ খুবই কার্যকরী।

যোগ ব্যায়ামের কিছু নির্দিষ্ট আসন, থাইরয়েডের সমস্যার নিরাময়ে আশ্চর্যজনক ফল দেয়। তবে যোগ ব্যায়ামের এই নির্দিষ্ট আসন গুলি ব্যবহারের জন্য অবশ্যই একজন যোগ ব্যায়ামের শিক্ষকের পরামর্শ নিবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *