বাংলাদেশ: শনিবার ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
৩রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১১ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি

  বাংলাদেশ: শনিবার ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৩রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১১ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি  

শেষ আপডেটঃ ১১:৩০ পিএম

বাংলাদেশের ১০ জন বিখ্যাত ব্যক্তি

বাংলাদেশের আর্থিক সামাজিক উন্নয়নসহ দেশ ও দেশের মানুষের জন্য বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখার মাধ্যমে বহু সময়ে বহু ব্যাক্তিত্ব মানুষের মনে জায়গা তৈরি করে নিয়েছে। ভিন্ন ভিন্ন প্রতিভার মাধ্যমে হয়ে উঠেছেন অনন্য। এরকমই ১০ জন বিখ্যাত ব্যক্তি হলেন-

(১) শেখ মুজিবুর রহমান-জাতির নায়ক, বাংলাদেশ অস্থায়ী সরকারের রাষ্ট্রপতি।মুক্তিযুদ্ধে তিনি অসামান্য অবদান রাখেন এবং যুদ্ধ পরবর্তী বাংলাদেশকে গড়ে তোলায় তার ভূমিকা অতুলনীয়।

(২) তাজউদ্দীন আহমদ-বাংলাদেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী ও স্বাধীনতা সংগ্রামের অন্যতম নেতা। তাজউদ্দীন আহমদ মুক্তিযুদ্ধকালীন বাংলাদেশের প্রথম সরকার গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন যা “মুজিবনগর সরকার” নামে অধিক পরিচিত। স্বাধীনতা পরবর্তীকালে তিনি বাংলাদেশের অর্থমন্ত্রী হিসাবে ১৯৭৪ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন।

(৩) নাসিমা আক্তার-একজন বাংলাদেশী বিজ্ঞানী যিনি নিউক্লিয়ার মেডিসিন বিশেষজ্ঞ। ২০১৩ তে নিউক্লিয়ার মেডিসিন ও আল্ট্রাসনোগ্রাফিতে তার কাজের জন্য তিনি এলসেভিয়ার ফাউন্ডেশন অ্যাওয়ার্ড-এ সম্মানিত হন।

(৪) অরুণ কুমার বসাক-বিজ্ঞানী এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এমিরিটাস অধ্যাপক। তিনি শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের প্রতিষ্ঠাতা প্রধান হিসাবে ১৯৯০-১৯৯৪ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন।

(৫) জয়নুল আবেদীন-বরেন্য চিত্রশিল্পী। বাংলাদেশে চিত্রশিল্প বিষয়ক শিক্ষার প্রসারে আমৃত্যু প্রচেষ্টার জন্য তিনি শিল্পাচার্য উপাধি লাভ করেন।

(৬) হুমায়ূন আহমেদ-কালজয়ী ঔপন্যাসিক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের প্রাক্তন অধ্যাপক।

(৭) ফজলে হাসান আবেদ-একজন বাংলাদেশি সমাজকর্মী এবং বিশ্বের বৃহত্তম বেসরকারি সংগঠন ব্র্যাকের প্রতিষ্ঠাতা। ২০১৪ ও ২০১৭ সালে ফরচুন ম্যাগাজিনের “বিশ্বের ৫০ সেরা নেতার তালিকা”য় তাঁর নাম অন্তর্ভুক্ত হয়।

(৮) মুহাম্মদ ইউনূস-গ্রামীণ ব্যাংকের প্রতিষ্ঠাতা, ক্ষুদ্র ঋণ প্রদান ধারণার প্রবর্তক। ২০০৬ সালে তিনি নোবেল শান্তি পুরষ্কার লাভ করেন।

(৯) আইয়ুব বাচ্চু-বিখ্যাত গায়ক ও গিটারবাদক। তিনি রক ব্যান্ড এল আর বি এর গায়ক ও গীটারবাদক হিসেবে পুরো বিশ্বে জনপ্রিয়তা লাভ করেছিলেন।

(১০)ববিতা-চলচ্চিত্র অভিনেত্রী ও প্রযোজক। তার পুরো নাম ফরিদা আক্তার পপি। তিনি ১৯৭৩ সালে ২৩তম বার্লিন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব থেকে গোল্ডেন বীয়ার জয়ী সত্যজিৎ রায়ের অশনি সংকেত চলচ্চিত্রের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র অঙ্গনে প্রশংসিত হন। ববিতা ৩৫০ এর বেশি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *