বাংলাদেশ: সোমবার ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৩ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি

  বাংলাদেশ: সোমবার ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৩ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি  

শেষ আপডেটঃ ১:৫২ পিএম

রাজধানীতে গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে, ৪ ডাকাত গ্রেফতার

রাজধানীর মতিঝিল থানা এলাকা হতে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত সরঞ্জামসহ ৪ ডাকাতকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) এর গোয়েন্দা রমনা বিভাগ।

গ্রেফতারকৃতরা হলো মোঃ রফিকুল ইসলাম বাবু, মোঃ ফিরোজ আলম, মোঃ রিয়াজুল ইসলাম ও মোঃ কামরুল ইসলাম। এসময় তাদের হেফাজত হতে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত সরঞ্জাম ২টি লোহা কাটার হেক্সো ব্লেড, ১টি স্কচট্যাপ, ২টি তালা, ৩টি স্ক্রু ড্রাইভার, ১টি স্টিলের ফোল্ডিং চাকু, ২টি গামছা, ২টি লোহার রড ও ২টি রশি উদ্ধার করা হয়।

১৮ আগস্ট (বুধবার) দিবাগত রাত ১২:৩০টায় ফকিরাপুল পানির ট্যাঙ্কির সামনে থেকে তাদের গ্রেফতার করে গোয়েন্দা রমনা বিভাগের অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার ও মাদক নিয়ন্ত্রণ টিম।

বৃহস্পতিবার (১৯ আগস্ট) দুপুরে ডিবি কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানান যুগ্ম পুলিশ কমিশনার (এ্যাডমিন এন্ড ডিবি-দক্ষিণ) মোঃ মাহবুব আলম বিপিএম, পিপিএম(বার)।

ডিবির যুগ্ম পুলিশ কমিশনার বলেন, কতিপয় দুস্কৃতিকারী মতিঝিল থানার ফকিরাপুল পানির ট্যাঙ্কির সামনের ফুটপাতে ধর্তব্য অপরাধ সংঘটনের উদ্দেশ্যে অবস্থান করছে মর্মে তথ্য পায় ডিবি রমনা বিভাগের অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার ও মাদক নিয়ন্ত্রণ টিম। উক্ত তথ্যের ভিত্তিতে সেখানে অভিযান পরিচালনা করে রফিকুল, ফিরোজ, রিয়াজুল ও কামরুলদেরকে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত সরঞ্জামসহ গ্রেফতার করা হয়।

ডাকাতির কৌশল সম্পর্কে তিনি বলেন, প্রথমে তারা রাত্রিবেলায় এলাকায় ঘুরেফিরে যে সকল বাসার আলো নিভানো থাকত সেই সকল বাসা টার্গেট করতো। এছাড়াও টার্গেটকৃত বাসার অস্থায়ী গৃহকর্মী বা নাইট গার্ডের মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহ করতো। তারপর গভীর রাতে ঐ বাসার দরজা জানালা ভেঙ্গে বাসার মালিককে ধারালো অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে স্বর্ণালংকার ও অন্যান্য মুল্যবান জিনিসপত্র লুন্ঠন করে চলে যাওয়ার সময়ে বাসার দরজায় তালা লাগিয়ে দিতো।

গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলার তথ্য পাওয়া যায় মর্মে পুলিশের এই গোয়েন্দা কর্মকর্তা জানান।

এ ঘটনায় গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে মতিঝিল থানায় মামলা রুজু হয়েছে। মামলার তদন্ত অব্যাহত আছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *