বাংলাদেশ: সোমবার ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৩ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি

  বাংলাদেশ: সোমবার ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৩ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি  

শেষ আপডেটঃ ১:৫২ পিএম

লাদাখের রহস্যঘেরা চুম্বক পাহাড়

লাদাখের লেহ অঞ্চল থেকে কারগিলের দিকে যেতে ত্রিশ কিলোমিটার দূরত্বেই ম্যাগনেটিক হিল বা চুম্বক পাহাড় অবস্থিত। ঊনিশ শতকের দিকে পশুবাহীত মালবাহী গাড়ি চলাচলের জন্য চুম্বক পাহাড়ের ঢালু ধরে রাস্তা তৈরী করা হয়েছিল। পরবর্তীতে বিশ শতকের গোঁড়ার দিকে সড়কটি আরো সম্প্রসারণ করা হয়। ১৯৩১ সালে ঐ সড়কটিতে যখন গাড়ি চলাচল শুরু হল তখন চালকরা খেয়াল করল যে, পাহাড় থেকে নামার সময় তাদের গাড়িগুলোকে জোর করে সামনের দিকে নামিয়ে নিয়ে যেতে হচ্ছে অন্যথায় গাড়িটি পেছনের দিক দিয়ে ওপরে উঠে যাচ্ছে। তখন থেকেই পাহাড়টিকে সবাই ম্যাগনেটিক হিল বা চুম্বক পাহাড় নামে জানে।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর যখন পর্যটন শিল্পের আবির্ভাব হয় তখন ঐ পাহাড়ী সড়কটির ঠিক পাশে নুড়ি পাথর দিয়ে ১ কি.মি. লম্বা একটি বাইপাস সড়ক তৈরী করা হয়। বর্তমানে এই ছোট্ট সড়কটি কানাডার অন্যতম প্রধান পর্যটন আকর্ষন এবং ঐতিহাসিক সম্পত্তি। স্থানীয়দের অনেকেই বিশ্বাস করেন এখানে কোনও অতিপ্রাকৃত শক্তি আছে যা এই ঘটনা ঘটায়।

আরও অবাক করা ব্যাপার হলো এই ম্যাগনেটিক হিলের এই চৌম্বকীয় আকর্ষণ শুধু যে লোহার বস্তুর ক্ষেত্রেই দেখা যায় তা নয়, অন্যান্য যেকোনো বস্তুর ক্ষেত্রেই এই আকর্ষণ সমানভাবে কাজ করে। এই সড়কের পাশে বা এই অঞ্চলের যেকোনো জায়গার কিছুটা উঁচু স্থানে দাঁড়ালে তীক্ষ্ণ রকমের এক অদ্ভুত শব্দ শুনতে পাওয়া যায়।অনেকেই এই শব্দকে ভৌতিক কোনও কিছু মনে করতো। পরবর্তীতে বিজ্ঞানীদের মাধ্যমে জানা যায় যে, পৃথিবীর যেসব অঞ্চলে এমন গ্র্যাভিটি হিল আছে সেখানেই এই শব্দ শুনতে পাওয়া যায়। এই শব্দ চৌম্বকীয় ক্ষেত্রের তরঙ্গে ঘর্ষণের ফলে উৎপাদিত হয়।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *