বাংলাদেশ: রবিবার ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১২ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি

  বাংলাদেশ: রবিবার ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১২ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি  

শেষ আপডেটঃ ১:৫২ পিএম

সামাজিক পরিবর্তনে একজন পুরুষের ভূমিকা

আমাদের সমাজবিদ্যায় পুরুষেরা প্রাথমিক ক্ষমতা ধারণ করে এবং রাজনৈতিক নেতৃত্ব, নৈতিক কর্তৃত্ব, সামাজিক সুবিধা ও সম্পত্তির নিয়ন্ত্রণের ক্ষেত্রে প্রাধান্য স্থাপন করে, পরিবাক ক্ষেত্রেও পুরুষেরাই কর্তৃত্ব স্তাপন করে।আমাদের সমাজ যেহেতু পুরুষতান্ত্রিক তাই যেকোনো সামাজিক বিষয়ে পুরুষের প্রভাব ই বেশি লক্ষ্যনীয়। পারিবারিক যেকোনো সিদ্ধান্ত গ্রহন, সামাজিক সিদ্ধান্ত গ্রহন সব ক্ষেত্রেই পুরুষের প্রভাব বেশি। তাই সমাজে পরিবর্তনের ক্ষেত্রে একজন পুরুষ ই সবথেকে বড় অবদান রাখতে পারে।

একজন পুরুষ যে যে ভাবে সমাজের পরিবর্তন ঘটতে পারে-

* পুরুষ কে হতে হবে বিশ্বাসযোগ্য : একজন পুরুষ যেমন হতে পারে রক্ষন তেমন ই হতে পারে ভক্ষক। একজন পুরুষ যেমন হতে পারে বাবা/ভাই ঠিক তেমন ই হতে পারে ধর্ষক।একজন নারীর সবথেকে নিরাপদ আশ্রয় হতে পারে একজন পুরুষ অপরদিকে একজন নারী নির্যাতনের শিকার হয় পুরুষের কাছ থেকেই। সমাজ পরিবর্তন করতে হবে একজন পুরুষ কে অবশ্যই বিশ্বাযোগ্য হতে হবে। নিজেকে এমন ভাবে তৈরি করতে হবে যেন সে কোনো নারীর ক্ষতির কারন না হয়ে নিরাপদ স্থান হয়।

*পোরুষত্বের অহংকার ত্যাগ : সমাজে বেশিরভাগ পুরুষই পুরুষ হওয়ার এক ধরনের অহংকার নিয়ে থাকে। এই অহংকার এতটাই তীব্র যে কোনো নারী তার থেকে বেশি সফল হলে তা সে মেনে নিতে পারে না শুরু করে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন। সমাজ পরিবর্তন করতে হলে পুরুষকে অবশ্যই এ ধরনের অহংকার ত্যাগ করে নারীরাও যে পুরুষের সমান বা পুরুষদের থেকে বেশি সফল হতে পারে এটা স্বাভাবিক ভাবে মেনে নেওয়া শিখতে হবে।

* সাংসারিক কাজে মানসম্মান ক্ষুন্ন হয়না : আমাদের সমাজের অনেক পুরুষ ই মনের মাঝে এক ধরনের কুসংস্কার লালন করে থাকে এবং তা হচ্ছে সাংসারিক কাজ শুধুমাত্র নারীদের। তারা মনে করে সাংসারিক কাজ করলে তাদের পৌরষত্বের সম্মান কমে যাবে। এ ধরনের চিন্তা ভাবনা থেকে সম্পুর্ণ ভাবে বের হয়ে আসতে হবে। একজন স্বামী তার স্ত্রী কে সাংসারিক কাজে সাহায্য করতেই পারে, একজন বাবা তার সন্তান এবং পরিবারের জন্য খাবার তৈরি করতেই পারে। এ কাজ অত্যন্ত স্বাভাবিক কখনোই অপমানজনক নয়।

*নারীর প্রতি সহানুভূতিশীল হওয়া এবং সম্মান প্রদর্শন করা : সমাজ পরিবর্তনের জন্য একজন পুরুষের উচিৎ নারীকে তার প্রাপ্য সম্মান দেয়া কখনো নিজের থেকে ছোট না মনে করা। এবং অধিকার না খাটিয়ে নারীদের প্রতি সহানুভূতিশীল হওয়া।

একজন পুরুষ চাইলেই এগিয়ে আসতে পারে সমাজ পরিবর্তনের লক্ষে এবং অন্য পুরুষদের ও উৎসাহিত করতে পারে। সমাজ কখনো একা নারীর বা একা পুরুষের নয় তাই সমাজ পরিবর্তনের দায়িত্ব ও নারী পুরুষ উভয়েরই।তবে একজন নারীর থেকে একজন পুরুষের সামাজিক অবস্থান বেশি শক্তিশালী তাই পরিবর্তন টা পুরুষের থেকে শুরু হলেই সমাজ সকলের জন্য হবে সুখের ও নিরাপদ স্থান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *