বাংলাদেশ: শুক্রবার ১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
২রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১০ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি

  বাংলাদেশ: শুক্রবার ১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১০ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি  

শেষ আপডেটঃ ১০:৪৭ পিএম

হারিয়ে যাচ্ছে দেশীয় সংস্কৃতি

একটা দেশের মানুষের আচার-ব্যবহার, খাবার দাবার, পোশাক-পরিচ্ছেদ, খেলাধুলা, বিনোদনসহ অনেক কিছু যার মাধ্যমে নিজের দেশকে বিশ্ববাসীর নিকট গৌরবের সাথে পরিচিত করা যায় তাকেই মূলত আমরা সংস্কৃতি হিসাবে বুঝে থাকি। বাংলা সংস্কৃতি বলতে যার কথা প্রথমেই মনে আসে, বাঙালি জাতির প্রানের উৎসব পহেলা বৈশাখ। প্রতি বছর বাংলা সনের প্রথম মাসের প্রথম দিনে সারা বাংলা মেতে উঠে এই উৎসবে। এই দিনে একসময় পান্তা ইলিশের গুরুত্বই ছিল আলাদা। এখনো অবশ্য এ উৎসবে পান্তা ইলিশ খাওয়ার প্রচলন আছে তবে তা সব অঞ্চলে প্রযোজ্য নয়।

বাংলার আনাচে-কানাচে একসময় বসত মেলা এবং প্রান জুড়ানো বাংলা গানের আসরে মন মাতাতো সবাই। কিন্তু বর্তমানে হারিয়ে যাচ্ছে মেলা তথা বৈশাখী গান। বৈশাখীর আয়োজন আজকের দিনে শুধুই রমনা বটমূল কিংবা টিএসসি কেন্দ্রিক হয়ে যাচ্ছে। যার ফলে আমরা হারিয়ে ফেলছি বাঙালির শত বছরের ঐতিহ্য। আগে পাড়ায় মহল্লায় কিংবা বটতলায় দেশীয় বাদ্যযন্ত্র নিয়ে বসত বাউলদের মন মাতানো গানের আসর। নদী মাতৃক বাংলার এসব গানের মধ্য দিয়ে উপলব্ধি করা যেত মা, মাটি ও মানুষের গন্ধ।

সারাদিনের কাজকর্ম শেষে সন্ধ্যাবেলা বাড়ির সবাইকে নিয়ে উঠানে বসে যেত গ্রামের লোক। রাত ভর চলত সুখ-দুঃখের গল্প কিংবা পুঁথি পাঠ। কিন্তু এখন আমাদের সমাজ সংস্কৃতি থেকে হারিয়ে গেছে পুঁথি কিংবা গল্পের আসর। বিজ্ঞানের আবিষ্কার আর আমাদের বিদেশী সংস্কৃতির প্রতি দুর্বলতা আমাদের কাছ থেকে কেড়ে নিয়েছে এক কালের ইতিহাস বিখ্যাত নকশি কাঁথা আর আমাদের সোনালি আঁশ, কুটির শিল্পকে। কালের পরিক্রমায় হারিয়ে যাচ্ছে আমাদের শত বছরের ইতিহাস, ঐতিহ্য, সংস্কৃতি।

বাংলার মানুষ বিনোদন ভালবাসে আর তাই তারা যাত্রাপালা, বায়োস্কোপ, পুতুল নাচ কিংবা গানের আসরে মনের খোরাক যোগাত। কিন্তু গ্রাম বাংলার যাত্রাপালার অস্তিত আজ বিলুপ্তির পথে। যার সবচেয়ে বড় কারণ আমরা আজ অপসংস্কৃতির দিকে ধাবিত হচ্ছি। ফলে এক এক করে হারিয়ে যাচ্ছে আমাদের দেশীয় সংস্কৃতির বিভিন্ন অংশ। আর তাই আজ আর আমরা দেখতে পাই না ঘোড়ার দৌড়, মহিষের লড়াই, নৌকাবাইচ কিংবা গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহি লাঠি খেলা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *