বাংলাদেশ: সোমবার ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৩ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি

  বাংলাদেশ: সোমবার ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৩ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি  

শেষ আপডেটঃ ১:৫২ পিএম

১০টি ইংরেজি সুপারহিট গান

জনপ্রিয়তার দিক থেকে সারা বিশ্বের মানুষের কাছেই ইংরেজি গানগুলো রয়েছে পছন্দের শীর্ষে। এসব গানের লিরিক্স, সুর সব মিলিয়েই বিশ্বব্যাপী খ্যাতি অর্জন করে যাচ্ছে ইংরেজী গানগুলো। বর্তমানে গানগুলোর জনপ্রিয়তা বিচার করা হয় ইউটিউবের ভিউ দেখে। ১ বিলিয়নের বেশি ভিউ পেলেই সেই নির্দিষ্ট গানটি সুপারহিটের লিস্টে চলে আসে। সেরকমই ইউটিউব প্লাটফর্মের উপর ভিত্তি করা জরিপে সবথেকে জনপ্রিয় ১০ টি ইংরেজি গান হলো-

(১) ডেসপাসিটো-লুইস ফনসি এবং ড্যাডি ইয়াঙ্কির ডেসপাসিটোর মূল সংস্করণটি ইউটিউবে সর্বকালের সবচেয়ে বেশি দেখা একটি মিউজিক ভিডিও।

(২) শেপ অফ ইউ-এড শিরানের সবথেকে জনপ্রিয় গানগুলোর মধ্যে এটি একটি। যা মুক্তি পায় ২০১৭ সালে এবং ইউটিউবে এর ভিউ প্রায় ৫ বিলিয়ন ছাড়িয়ে।

(৩) সি ইউ এগেইন-র‍্যাপার এবং মারিজুয়ানা অ্যাক্টিভিস্ট উইজ খলিফা বিশ্বের সবচেয়ে বেশি শোনা শিল্পীদের মধ্যে একজন। তারই গাওয়া গান “সি ইউ এগেইন” যার ইউটিউবে প্রায় ৫.২ বিলিয়ন ভিউ রয়েছে।

(৪) আপটাউন ফঙ্ক-মার্ক রনসনের চতুর্থ অ্যালবাম আপটাউন থেকে এই গানটির ইউটিউবে প্রায় ৪.২ বিলিয়ন ভিউ রয়েছে।

(৫) গ্যাংনাম স্টাইল-এটি অন্যতম একটি ভাইরাল হিট সং যা আন্তর্জাতিক, ভাষাগত এবং সাংস্কৃতিক ব্যানার ভেঙে দিয়েছে। পিএসওয়াই থেকে গ্যাংনাম স্টাইল ২০১২ সালে ইন্টারনেটে আঘাত হানার সাথে সাথে বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় গান হয়ে ওঠে।

(৬) সরি-জাস্টিম বিবার সর্বাধিক জনপ্রিয় শিল্পীদের মধ্যেই একজন। তার সরি গানটি ইউটিউবে প্রায় ৩ বিলিয়ন ভিউ অর্জন করে নিয়েছে।

(৭) সুগ্যার-ইংলিশ ব্যান্ড দলের মধ্যে মেরুন -৫ অনেক বেশি জনপ্রিয়। এদের সব গান ই বেশ হিট করলে সুগ্যার গানটি সব গানটে ছাড়িয়ে সর্বাধিক জনপ্রিয়তা লাভ করেছে।

(৮) রোয়্যার-২০১৩ সালে মুক্তি পাওয়া গান গুলোর মধ্যে ক্যাটি পেরির রোয়্যার গান টি ইউটিউবে সর্বাধিক বার শোনা হয়েছে।

(৯) থিংকিং আউট লাউড-এড শিরান একমাত্র ব্যক্তি যিনি ইউটিউবের বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় গানে দুবার উপস্থিত হয়েছেন, তার একক থিংকিং আউট লাউড অক্টোবর ২০১৪ সালে প্রকাশিত হওয়ার পর থেকে তিন বিলিয়ন ভিউ পেয়েছে।

(১০) কাউন্টিং স্টার’স-ওয়ানপাবলিকের গানগুলোর মধ্যে এই গানটিই সবথেকে বেশি জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *