যশোর- ৪ আসনে এমপি নির্বাচন করতে চান নিকুঞ্জ বিহারী

,
যশোর- ৪ আসনে এমপি নির্বাচন করতে চান নিকুঞ্জ বিহারী
মানবিক চিকিৎসক নিকুঞ্জ বিহারী গোলদার

যশোর-৪ ( অভয়নগর-বাঘারপাড়া ও বসুন্দিয়া ) আসন থেকে নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করতে চান আদর্শ ও মানবিক চিকিৎসক নিকুঞ্জ বিহারী গোলদার। ইতিমধ্যে তিনি জোরালো প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। জড়িত আছেন নানা সামাজিক উন্নয়ন ও সেবামূলক কর্মকাণ্ডে। আওয়ামী লীগের দলীয় অনুষ্ঠানে সক্রিয়ভাবে অংশ গ্রহণ করছেন। মানুষের সুখে দুখে পাশে দাঁড়াচ্ছেন। বিনামূল্যে দিচ্ছেন চিকিৎসাসেবা। সাধারণ ভোটাররা সাদা মনের এই মানুষটাকে এমপি হিসেবে দেখতে চান। ডা. নিকুঞ্জ বিহারী গোলদার বলেন, তিনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়ে কাজ করে চলেছেন। বাকি জীবন জনপ্রতিনিধি হয়ে মানুষের পাশে থাকতে চান।

যশোর মেডিকেল কলেজের গাইনী বিভাগের অধ্যাপক ছিলেন ডা. নিকুঞ্জ বিহারী গোলদার। ২০১৬ সালে তিনি চাকরি থেকে অবসরে যান। এরপর থেকে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব স্মরণে মানবসেবায় নেমে পড়েন। এই কয়েক বছরে তিনি যশোর সদর উপজেলার বসুন্দিয়া, বাঘারপাড়া ও অভয়নগর উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে গ্রামে শতাধিক ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্পের মাধ্যমে দরিদ্র ও অসহায় পরিবারের সাড়ে ৪ হাজারের বেশি নারী ও প্রসূতিদের বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা ও ওষুধ প্রদান করেছেন। এজন্য তিনি দরিদ্র মানুষের কাছে ব্যাপক সুনাম অর্জন করেছেন। এছাড়া বিভিন্ন জটিল অস্ত্রোপচারে সাফল্য অর্জন ছাড়াও রোগীদের বিনামূল্যে অপারেশন করে সততার পরিচয় দিচ্ছেন। বিনামূল্যে চিকিৎসা ও ওষুধ পেয়ে অনেকে খুশি হয়েছেন। বর্তমানে একজন মানবিক চিকিৎসক হিসেবে পরিচিতি পেয়েছেন।

অধ্যাপক ডা. নিকুঞ্জ বিহারী গোলদার জানান, গ্রামের অসহায় ও দরিদ্র পরিবারের মানুষ অর্থের অভাবে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের কাছে আসতে পারেন না। জটিল সমস্যা হলেও নিরবে যন্ত্রনা সহ্য করেন। তার লক্ষ্য দরিদ্র পরিবারের নারী ও প্রসূতিদের চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করা। এজন্য তিনি গ্রামে গ্রামে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প বসিয়ে দরিদ্র মানুষের উন্নত চিকিৎসাসেবা প্রদান করে চলেছেন। সেই সাথে ওষুধ দিচ্ছেন। কোন রোগীর অস্ত্রোপচারের প্রয়োজন হলেও করা হচ্ছে। বিনিময়ে বাঘারপাড়া ও অভয়নগর উপজেলার আপামর মানুষের ভালোবাসা পেয়েছেন।

ডা. নিকুঞ্জ বিহারী গোলদার আরও জানান, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে আমরা স্বাধীন দেশ উপহার পেয়েছি। তার মহীয়সী সহধর্মিণীকে আমি শ্রদ্ধা নিবেদন করছি। সেই বঙ্গমাতার অনুপ্রেরণায় ৭ বছর শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব স্মরণে অসহায় মানুষের বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা প্রদান করে যাচ্ছেন। বাকিটা জীবন এভাবে মানুষের সেবা করে যেতে যাবেন।

তিনি জানান, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ ও মমতাময়ী জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতি শ্রদ্ধা নিয়ে রাজনীতি ও জনসেবা করে যাচ্ছেন। এলাকার মানুষের বিপদে আপদে পাশে থেকে সাধ্যমতো সহোযোগিতা করছেন। জনপ্রতিনিধি হয়ে সেবার পরিধি বাড়াতে চান।

তিনি আরও জানান, যশোর-৪ আসনে এমপি হিসেবে জনগণ নতুন মুখ দেখতে চাই। আসন্ন নির্বাচনে তিনি জননেত্রীর কাছে দলীয় মনোনয়ন চাইবেন। নৌকা প্রতীক পেলে ভোটযুদ্ধ করবেন।

তিনি জানান,বর্তমান প্রজন্মকে মাদকের ভয়াবহত থেকে রক্ষা করতে হবে। এলাকার উন্নয়নের পাশাপাশি অবহেলিত জণগনকে ন্যায্য অধিকার ফিরিয়ে দেয়া হবে তার প্রধান লক্ষ্য।

এক প্রশ্নে ডা. নিকুঞ্জ বিহারী গোলদার জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিচক্ষণতার সঙ্গে দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। তিনি বোঝেন কোনটা ভালো আর কোনটা মন্দ। তাকে মনোনয়ন দেয়ার বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী বিবেচনা করবেন বলে আশাবাদী।

এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বাঘারপাড়া- অভয়নগর উপজেলা ও বসুন্দিয়া ইউনিয়নে সেবামূলক কর্মকান্ডের মধ্য দিয়ে ইতিমধ্যে তিনি ব্যাপক সুনাম কুড়িয়েছেন। বিশেষ করে মানুষের কাছে বর্তমানে তিনি আস্থার প্রতিক হয়েছেন।

এজেড নিউজ বিডি ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

যশোর- ৪ আসনে এমপি নির্বাচন করতে চান নিকুঞ্জ বিহারী

যশোর- ৪ আসনে এমপি নির্বাচন করতে চান নিকুঞ্জ বিহারী
মানবিক চিকিৎসক নিকুঞ্জ বিহারী গোলদার

যশোর-৪ ( অভয়নগর-বাঘারপাড়া ও বসুন্দিয়া ) আসন থেকে নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করতে চান আদর্শ ও মানবিক চিকিৎসক নিকুঞ্জ বিহারী গোলদার। ইতিমধ্যে তিনি জোরালো প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। জড়িত আছেন নানা সামাজিক উন্নয়ন ও সেবামূলক কর্মকাণ্ডে। আওয়ামী লীগের দলীয় অনুষ্ঠানে সক্রিয়ভাবে অংশ গ্রহণ করছেন। মানুষের সুখে দুখে পাশে দাঁড়াচ্ছেন। বিনামূল্যে দিচ্ছেন চিকিৎসাসেবা। সাধারণ ভোটাররা সাদা মনের এই মানুষটাকে এমপি হিসেবে দেখতে চান। ডা. নিকুঞ্জ বিহারী গোলদার বলেন, তিনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়ে কাজ করে চলেছেন। বাকি জীবন জনপ্রতিনিধি হয়ে মানুষের পাশে থাকতে চান।

যশোর মেডিকেল কলেজের গাইনী বিভাগের অধ্যাপক ছিলেন ডা. নিকুঞ্জ বিহারী গোলদার। ২০১৬ সালে তিনি চাকরি থেকে অবসরে যান। এরপর থেকে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব স্মরণে মানবসেবায় নেমে পড়েন। এই কয়েক বছরে তিনি যশোর সদর উপজেলার বসুন্দিয়া, বাঘারপাড়া ও অভয়নগর উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে গ্রামে শতাধিক ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্পের মাধ্যমে দরিদ্র ও অসহায় পরিবারের সাড়ে ৪ হাজারের বেশি নারী ও প্রসূতিদের বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা ও ওষুধ প্রদান করেছেন। এজন্য তিনি দরিদ্র মানুষের কাছে ব্যাপক সুনাম অর্জন করেছেন। এছাড়া বিভিন্ন জটিল অস্ত্রোপচারে সাফল্য অর্জন ছাড়াও রোগীদের বিনামূল্যে অপারেশন করে সততার পরিচয় দিচ্ছেন। বিনামূল্যে চিকিৎসা ও ওষুধ পেয়ে অনেকে খুশি হয়েছেন। বর্তমানে একজন মানবিক চিকিৎসক হিসেবে পরিচিতি পেয়েছেন।

অধ্যাপক ডা. নিকুঞ্জ বিহারী গোলদার জানান, গ্রামের অসহায় ও দরিদ্র পরিবারের মানুষ অর্থের অভাবে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের কাছে আসতে পারেন না। জটিল সমস্যা হলেও নিরবে যন্ত্রনা সহ্য করেন। তার লক্ষ্য দরিদ্র পরিবারের নারী ও প্রসূতিদের চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করা। এজন্য তিনি গ্রামে গ্রামে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প বসিয়ে দরিদ্র মানুষের উন্নত চিকিৎসাসেবা প্রদান করে চলেছেন। সেই সাথে ওষুধ দিচ্ছেন। কোন রোগীর অস্ত্রোপচারের প্রয়োজন হলেও করা হচ্ছে। বিনিময়ে বাঘারপাড়া ও অভয়নগর উপজেলার আপামর মানুষের ভালোবাসা পেয়েছেন।

ডা. নিকুঞ্জ বিহারী গোলদার আরও জানান, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে আমরা স্বাধীন দেশ উপহার পেয়েছি। তার মহীয়সী সহধর্মিণীকে আমি শ্রদ্ধা নিবেদন করছি। সেই বঙ্গমাতার অনুপ্রেরণায় ৭ বছর শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব স্মরণে অসহায় মানুষের বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা প্রদান করে যাচ্ছেন। বাকিটা জীবন এভাবে মানুষের সেবা করে যেতে যাবেন।

তিনি জানান, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ ও মমতাময়ী জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতি শ্রদ্ধা নিয়ে রাজনীতি ও জনসেবা করে যাচ্ছেন। এলাকার মানুষের বিপদে আপদে পাশে থেকে সাধ্যমতো সহোযোগিতা করছেন। জনপ্রতিনিধি হয়ে সেবার পরিধি বাড়াতে চান।

তিনি আরও জানান, যশোর-৪ আসনে এমপি হিসেবে জনগণ নতুন মুখ দেখতে চাই। আসন্ন নির্বাচনে তিনি জননেত্রীর কাছে দলীয় মনোনয়ন চাইবেন। নৌকা প্রতীক পেলে ভোটযুদ্ধ করবেন।

তিনি জানান,বর্তমান প্রজন্মকে মাদকের ভয়াবহত থেকে রক্ষা করতে হবে। এলাকার উন্নয়নের পাশাপাশি অবহেলিত জণগনকে ন্যায্য অধিকার ফিরিয়ে দেয়া হবে তার প্রধান লক্ষ্য।

এক প্রশ্নে ডা. নিকুঞ্জ বিহারী গোলদার জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিচক্ষণতার সঙ্গে দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। তিনি বোঝেন কোনটা ভালো আর কোনটা মন্দ। তাকে মনোনয়ন দেয়ার বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী বিবেচনা করবেন বলে আশাবাদী।

এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বাঘারপাড়া- অভয়নগর উপজেলা ও বসুন্দিয়া ইউনিয়নে সেবামূলক কর্মকান্ডের মধ্য দিয়ে ইতিমধ্যে তিনি ব্যাপক সুনাম কুড়িয়েছেন। বিশেষ করে মানুষের কাছে বর্তমানে তিনি আস্থার প্রতিক হয়েছেন।

এজেড নিউজ বিডি ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Download
ঠিকানা: মনসুরাবাদ হাউজিং, ঢাকা-১২০৭ এজেড মাল্টিমিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।