৮০ শহরে ইন্টারনেট-ফোন সংযোগ বিচ্ছিন্ন করলো মিয়ানমার জান্তা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক এজেড নিউজ বিডি, ঢাকা
৮০ শহরে ইন্টারনেট-ফোন সংযোগ বিচ্ছিন্ন করলো মিয়ানমার জান্তা
ছবি: সংগৃহীত

মিয়ানমারের প্রায় ৮০টি শহরে ইন্টারনেট এবং ফোন সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে দেশটির জান্তা সরকার। ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্নের কারণে ব্যাংকিং পরিষেবা এবং অনলাইন আর্থিক স্থানান্তর বন্ধ হয়ে গেছে।

শুক্রবার মতপ্রকাশের স্বাধীনতার সংগঠন ‘আথান’এর বরাত দিয়ে এ খবর প্রকাশ করেছে মিয়ানমারের সংবাদমাধ্যম ‘দ্য ইরাবতী’।

প্রতিবেদনে বলা হয়, রাখাইনের ১৭টি শহরের সবকটি যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। এছাড়া এ বিচ্ছিন্ন হওয়ার মধ্যে রয়েছে সাগাইং অঞ্চলের ৩৪টি শহরের মধ্যে ২৭টি এবং কায়াহ রাজ্যের সাতটি শহরের মধ্যে পাঁচটি। শান, চিন, কাচিন এবং মোন রাজ্য এবং তানিনথারি, ম্যাগওয়ে, বাগো এবং আইয়ারওয়াদি অঞ্চলের শহরগুলোতেও ইন্টারনেট ও টেলিফোন যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।
বেশিরভাগ শহরে ইন্টারনেট এবং ফোন লাইন উভয়ই সংযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। বাকি শহরগুলোতে মোবাইল ইন্টারনেট থাকলেও গতি খুবই দুর্বল।

গত বছরের নভেম্বর থেকে উত্তর রাখাইন রাজ্য জুড়ে জান্তার বিরুদ্ধে লড়াই করছে আরাকান আর্মি। প্রায় ১৮০টি জান্তা ঘাঁটি, নয়টি শহর এবং দক্ষিণ চিন রাজ্যের পুরো পালেতওয়া শহর দখল করেছে তারা।

আথান বলেছে, রাখাইনের রাজধানী সিত্তওয়েতে সামরিক মালিকানাধীন টেলিকম সরবরাহকারী মাইটেল গত ১৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত কাজ করে। তারপর সব ওয়াই-ফাই এবং মোবাইল ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ করা হয়।

তবে দুই রাখাইন বাসিন্দা ‘দ্য ইরাবতী’কে বলেছেন, জান্তা-মালিকানাধীন টেলিকম অপারেশন মাইটেল এবং এমপিটি বৃহস্পতিবার সিটওয়েতে কাজ করেছে।

এক বাসিন্দা বলেন, কিছু এলাকায় ফোন লাইন পুনরুদ্ধার করা হয়েছে কিন্তু ইন্টারনেট সংযোগ নেই।

আথান বলেছে, ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্নের কারণে ব্যাংকিং পরিষেবা এবং অনলাইন আর্থিক স্থানান্তর বন্ধ হয়ে গেছে।

আথান আরও বলেছে, যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হলো শাসক-বিরোধী শক্তিকে দমন করার জান্তা সরকারের একপ্রকার কৌশল। এটা স্পষ্ট যে জান্তা সরকার তথ্যের প্রবাহ গোপন করতে এবং বিপ্লবী কর্মকাণ্ডের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার জন্য ইচ্ছাকৃতভাবে জনগণকে দমন করছে।

এজেড নিউজ বিডি ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

৮০ শহরে ইন্টারনেট-ফোন সংযোগ বিচ্ছিন্ন করলো মিয়ানমার জান্তা

৮০ শহরে ইন্টারনেট-ফোন সংযোগ বিচ্ছিন্ন করলো মিয়ানমার জান্তা
ছবি: সংগৃহীত

মিয়ানমারের প্রায় ৮০টি শহরে ইন্টারনেট এবং ফোন সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে দেশটির জান্তা সরকার। ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্নের কারণে ব্যাংকিং পরিষেবা এবং অনলাইন আর্থিক স্থানান্তর বন্ধ হয়ে গেছে।

শুক্রবার মতপ্রকাশের স্বাধীনতার সংগঠন ‘আথান’এর বরাত দিয়ে এ খবর প্রকাশ করেছে মিয়ানমারের সংবাদমাধ্যম ‘দ্য ইরাবতী’।

প্রতিবেদনে বলা হয়, রাখাইনের ১৭টি শহরের সবকটি যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। এছাড়া এ বিচ্ছিন্ন হওয়ার মধ্যে রয়েছে সাগাইং অঞ্চলের ৩৪টি শহরের মধ্যে ২৭টি এবং কায়াহ রাজ্যের সাতটি শহরের মধ্যে পাঁচটি। শান, চিন, কাচিন এবং মোন রাজ্য এবং তানিনথারি, ম্যাগওয়ে, বাগো এবং আইয়ারওয়াদি অঞ্চলের শহরগুলোতেও ইন্টারনেট ও টেলিফোন যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।
বেশিরভাগ শহরে ইন্টারনেট এবং ফোন লাইন উভয়ই সংযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। বাকি শহরগুলোতে মোবাইল ইন্টারনেট থাকলেও গতি খুবই দুর্বল।

গত বছরের নভেম্বর থেকে উত্তর রাখাইন রাজ্য জুড়ে জান্তার বিরুদ্ধে লড়াই করছে আরাকান আর্মি। প্রায় ১৮০টি জান্তা ঘাঁটি, নয়টি শহর এবং দক্ষিণ চিন রাজ্যের পুরো পালেতওয়া শহর দখল করেছে তারা।

আথান বলেছে, রাখাইনের রাজধানী সিত্তওয়েতে সামরিক মালিকানাধীন টেলিকম সরবরাহকারী মাইটেল গত ১৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত কাজ করে। তারপর সব ওয়াই-ফাই এবং মোবাইল ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ করা হয়।

তবে দুই রাখাইন বাসিন্দা ‘দ্য ইরাবতী’কে বলেছেন, জান্তা-মালিকানাধীন টেলিকম অপারেশন মাইটেল এবং এমপিটি বৃহস্পতিবার সিটওয়েতে কাজ করেছে।

এক বাসিন্দা বলেন, কিছু এলাকায় ফোন লাইন পুনরুদ্ধার করা হয়েছে কিন্তু ইন্টারনেট সংযোগ নেই।

আথান বলেছে, ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্নের কারণে ব্যাংকিং পরিষেবা এবং অনলাইন আর্থিক স্থানান্তর বন্ধ হয়ে গেছে।

আথান আরও বলেছে, যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হলো শাসক-বিরোধী শক্তিকে দমন করার জান্তা সরকারের একপ্রকার কৌশল। এটা স্পষ্ট যে জান্তা সরকার তথ্যের প্রবাহ গোপন করতে এবং বিপ্লবী কর্মকাণ্ডের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার জন্য ইচ্ছাকৃতভাবে জনগণকে দমন করছে।

এজেড নিউজ বিডি ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Download
ঠিকানা: মনসুরাবাদ হাউজিং, ঢাকা-১২০৭ এজেড মাল্টিমিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।