সবুজ ও সহনশীল বিশ্ব গড়তে এগিয়ে আসার আহ্বান

ডেস্ক এডিটর এজেড নিউজ বিডি, ঢাকা
সবুজ ও সহনশীল বিশ্ব গড়তে এগিয়ে আসার আহ্বান
ছবি: সংগৃহীত

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, সবুজ ও সহনশীল বিশ্ব গড়তে উন্নত দেশগুলোকে দৃঢ় সংকল্পে এগিয়ে আসতে হবে। পারস্পরিক সহযোগিতা ও সমন্বিত উদ্যোগ, আর্থিক সম্পদের গতিশীলতা ও প্রযুক্তির শর্তহীন বিনিময় ছাড়া নবায়নযোগ্য জ্বালানির প্রসার ঘটবে না। বিষয়টি মাথায় রেখে সহযোগিতার মনোভাব নিয়েই আলোচনা করা উচিত।

মঙ্গলবার (১৯ মার্চ) জার্মানিতে এক গোলটেবিল বৈঠকে এসব কথা বলেন তিনি। মঙ্গলবার রাতে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

অনুষ্ঠানে নসরুল হামিদ বলেন, নানা প্রতিকূলতার মধ্যেও বাংলাদেশ ২০৪১ সালের মধ্যে ৪০ শতাংশ বিদ্যুৎ নবায়নযোগ্য উৎস থেকে উৎপাদন করবে। উন্নত দেশ থেকে আধুনিক গ্রিড ব্যবস্থা ও দক্ষতার উন্নয়নে প্রযুক্তিগত সহযোগিতা এবং উৎকর্ষতার বিনিময় হওয়া প্রয়োজন। জার্মানি নরায়নযোগ্য প্রযুক্তির প্রসারে, বিশেষ করে বায়ু থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনে কার্যকর উদ্যোগ নিতে পারে। কার্বন নিঃসরণের হার উল্লেখযোগ্য মাত্রায় কমাতে আন্তর্জাতিক কমিউনিটির সহযোগিতা আবশ্যক। জলবায়ু নিরপেক্ষ পণ্য উৎপাদন ও ব্যবহারে প্রয়োজন নরায়নযোগ্য জ্বালানির পরিচালনায় আর্থিক সহায়তা এবং আর্থিক সম্পদের গতিময়তা। এসব ছাড়া নরায়নযোগ্য জ্বালানির ব্যবহার বাড়বে না। নরায়নযোগ্য জ্বালানি ও জলবায়ু স্থিতিস্থাপকতার জন্য আন্তর্জাতিক সমর্থন অপরিহার্য।

গোলটেবিল বৈঠকে জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী আনালিনা বারবক, জার্মানির অর্থনৈতিক ও জলবায়ু কার্যক্রমবিষয়ক মন্ত্রী ড. রবার্ট হাবেকসহ বিভিন্ন দেশের মন্ত্রী ও প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন।

এজেড নিউজ বিডি ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

সবুজ ও সহনশীল বিশ্ব গড়তে এগিয়ে আসার আহ্বান

সবুজ ও সহনশীল বিশ্ব গড়তে এগিয়ে আসার আহ্বান
ছবি: সংগৃহীত

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, সবুজ ও সহনশীল বিশ্ব গড়তে উন্নত দেশগুলোকে দৃঢ় সংকল্পে এগিয়ে আসতে হবে। পারস্পরিক সহযোগিতা ও সমন্বিত উদ্যোগ, আর্থিক সম্পদের গতিশীলতা ও প্রযুক্তির শর্তহীন বিনিময় ছাড়া নবায়নযোগ্য জ্বালানির প্রসার ঘটবে না। বিষয়টি মাথায় রেখে সহযোগিতার মনোভাব নিয়েই আলোচনা করা উচিত।

মঙ্গলবার (১৯ মার্চ) জার্মানিতে এক গোলটেবিল বৈঠকে এসব কথা বলেন তিনি। মঙ্গলবার রাতে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

অনুষ্ঠানে নসরুল হামিদ বলেন, নানা প্রতিকূলতার মধ্যেও বাংলাদেশ ২০৪১ সালের মধ্যে ৪০ শতাংশ বিদ্যুৎ নবায়নযোগ্য উৎস থেকে উৎপাদন করবে। উন্নত দেশ থেকে আধুনিক গ্রিড ব্যবস্থা ও দক্ষতার উন্নয়নে প্রযুক্তিগত সহযোগিতা এবং উৎকর্ষতার বিনিময় হওয়া প্রয়োজন। জার্মানি নরায়নযোগ্য প্রযুক্তির প্রসারে, বিশেষ করে বায়ু থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনে কার্যকর উদ্যোগ নিতে পারে। কার্বন নিঃসরণের হার উল্লেখযোগ্য মাত্রায় কমাতে আন্তর্জাতিক কমিউনিটির সহযোগিতা আবশ্যক। জলবায়ু নিরপেক্ষ পণ্য উৎপাদন ও ব্যবহারে প্রয়োজন নরায়নযোগ্য জ্বালানির পরিচালনায় আর্থিক সহায়তা এবং আর্থিক সম্পদের গতিময়তা। এসব ছাড়া নরায়নযোগ্য জ্বালানির ব্যবহার বাড়বে না। নরায়নযোগ্য জ্বালানি ও জলবায়ু স্থিতিস্থাপকতার জন্য আন্তর্জাতিক সমর্থন অপরিহার্য।

গোলটেবিল বৈঠকে জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী আনালিনা বারবক, জার্মানির অর্থনৈতিক ও জলবায়ু কার্যক্রমবিষয়ক মন্ত্রী ড. রবার্ট হাবেকসহ বিভিন্ন দেশের মন্ত্রী ও প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন।

এজেড নিউজ বিডি ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Download
ঠিকানা: মনসুরাবাদ হাউজিং, ঢাকা-১২০৭ এজেড মাল্টিমিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।