আপাতত তাপপ্রবাহ কমার সম্ভাবনা নেই

ডেস্ক এডিটর এজেড নিউজ বিডি, ঢাকা
আপাতত তাপপ্রবাহ কমার সম্ভাবনা নেই

গত কয়েক দিন ধরে সারাদেশে তীব্র গরম অনুভূত হচ্ছে। বির্পযস্ত জনজীবন। সবচেয়ে বিপাকে নিম্নআয়ের মানুষজন। এ অবস্থায় দেশের কিছু অঞ্চলের ওপর দিয়ে ওপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। যা অব্যাহত থাকবে এবং আরও বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। বাতাসে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ বেশি থাকায় এ সময় জনজীবনে অস্বস্তি বাড়তে পারে বলেও জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) সন্ধ্যায় আবহাওয়া অধিদপ্তরের দেওয়া পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রাজশাহী, ঢাকা ও খুলনা বিভাগের ওপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। এই তাপপ্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে। আর তা আরও বিস্তার লাভ করতে পারে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, আজ বুধবারও তিন বিভাগে তাপপ্রবাহ বয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা আছে। তবে গতকাল মঙ্গলবার এর আগের দিনের চেয়ে তাপমাত্রা সামান্য কমেছে। আগামীকাল বৃহস্পতিবার তাপমাত্রা আরও বাড়তে পারে।

আবহাওয়াবিদরা বলছেন, বছরের সবচেয়ে গরম মাস এপ্রিলের প্রথম দিন থেকেই দেশের বিভিন্ন স্থানে বয়ে যাচ্ছে মৃদু থেকে মাঝারি তাপপ্রবাহ। দ্রুত এই তাপপ্রবাহ বন্ধ হওয়ার সম্ভাবনা কম। তাপপ্রবাহ বেড়ে যাওয়ার ফলে বাতাসে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ বেড়েছে। আর এতে মানুষের অস্বস্তি বাড়তে পারে ।

মঙ্গলবার দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় চুয়াডাঙ্গায়, ৩৮.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আগের দিন সোমবার দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল মোংলা ও ঈশ্বরদীতে, ৩৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গতকাল ঢাকায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৩৬.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আগের দিন সোমবার রাজধানীর তাপমাত্রা ছিল ৩৭.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

এপ্রিল মাসে দেশের গড় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকে ৩৩.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আবহাওয়া অধিদপ্তর প্রতিদিন দেশের ৪৪টি স্টেশনের আবহাওয়া পরিস্থিতি তুলে ধরে। মঙ্গলবার এই ৪৪ স্টেশনের মধ্যে ৩৩টি স্টেশনেই তাপমাত্রা ৩৩ ডিগ্রি সেলসিয়াসের ওপরে ছিল।

তাপমাত্রা ৩৬ থেকে ৩৭.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস হলে তাকে মৃদু থেকে মাঝারি তাপপ্রবাহ বলা হয়।

এই প্রচণ্ড গরমের মধ্যে দুই বিভাগের দু-একটি স্থানে বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস। পূর্বাভাস বলছে, বুধবার চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ী দমকা বা ঝোড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে কোথাও কোথাও এর প্রভাবে শিলাবৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের অন্যত্র অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে।

প্রতি মাসের শুরুতে ওই মাসের দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাস দেয় আবহাওয়া অধিদপ্তর। এপ্রিল মাসের পূর্বাভাসে বলা হয়, এ মাসে স্বাভাবিকের চেয়ে কম বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে। এ মাসে এক থেকে তিন দিন তীব্র কালবৈশাখীর সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়া বঙ্গোপসাগরে দু–একটি লঘুচাপ সৃষ্টিরও সম্ভাবনা আছে। এর মধ্যে একটি ঘূর্ণিঝড়ের রূপও নিতে পারে।

এজেড নিউজ বিডি ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

আপাতত তাপপ্রবাহ কমার সম্ভাবনা নেই

আপাতত তাপপ্রবাহ কমার সম্ভাবনা নেই

গত কয়েক দিন ধরে সারাদেশে তীব্র গরম অনুভূত হচ্ছে। বির্পযস্ত জনজীবন। সবচেয়ে বিপাকে নিম্নআয়ের মানুষজন। এ অবস্থায় দেশের কিছু অঞ্চলের ওপর দিয়ে ওপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। যা অব্যাহত থাকবে এবং আরও বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। বাতাসে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ বেশি থাকায় এ সময় জনজীবনে অস্বস্তি বাড়তে পারে বলেও জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) সন্ধ্যায় আবহাওয়া অধিদপ্তরের দেওয়া পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রাজশাহী, ঢাকা ও খুলনা বিভাগের ওপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। এই তাপপ্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে। আর তা আরও বিস্তার লাভ করতে পারে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, আজ বুধবারও তিন বিভাগে তাপপ্রবাহ বয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা আছে। তবে গতকাল মঙ্গলবার এর আগের দিনের চেয়ে তাপমাত্রা সামান্য কমেছে। আগামীকাল বৃহস্পতিবার তাপমাত্রা আরও বাড়তে পারে।

আবহাওয়াবিদরা বলছেন, বছরের সবচেয়ে গরম মাস এপ্রিলের প্রথম দিন থেকেই দেশের বিভিন্ন স্থানে বয়ে যাচ্ছে মৃদু থেকে মাঝারি তাপপ্রবাহ। দ্রুত এই তাপপ্রবাহ বন্ধ হওয়ার সম্ভাবনা কম। তাপপ্রবাহ বেড়ে যাওয়ার ফলে বাতাসে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ বেড়েছে। আর এতে মানুষের অস্বস্তি বাড়তে পারে ।

মঙ্গলবার দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় চুয়াডাঙ্গায়, ৩৮.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আগের দিন সোমবার দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল মোংলা ও ঈশ্বরদীতে, ৩৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গতকাল ঢাকায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৩৬.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আগের দিন সোমবার রাজধানীর তাপমাত্রা ছিল ৩৭.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

এপ্রিল মাসে দেশের গড় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকে ৩৩.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আবহাওয়া অধিদপ্তর প্রতিদিন দেশের ৪৪টি স্টেশনের আবহাওয়া পরিস্থিতি তুলে ধরে। মঙ্গলবার এই ৪৪ স্টেশনের মধ্যে ৩৩টি স্টেশনেই তাপমাত্রা ৩৩ ডিগ্রি সেলসিয়াসের ওপরে ছিল।

তাপমাত্রা ৩৬ থেকে ৩৭.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস হলে তাকে মৃদু থেকে মাঝারি তাপপ্রবাহ বলা হয়।

এই প্রচণ্ড গরমের মধ্যে দুই বিভাগের দু-একটি স্থানে বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস। পূর্বাভাস বলছে, বুধবার চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ী দমকা বা ঝোড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে কোথাও কোথাও এর প্রভাবে শিলাবৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের অন্যত্র অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে।

প্রতি মাসের শুরুতে ওই মাসের দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাস দেয় আবহাওয়া অধিদপ্তর। এপ্রিল মাসের পূর্বাভাসে বলা হয়, এ মাসে স্বাভাবিকের চেয়ে কম বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে। এ মাসে এক থেকে তিন দিন তীব্র কালবৈশাখীর সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়া বঙ্গোপসাগরে দু–একটি লঘুচাপ সৃষ্টিরও সম্ভাবনা আছে। এর মধ্যে একটি ঘূর্ণিঝড়ের রূপও নিতে পারে।

এজেড নিউজ বিডি ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Download
ঠিকানা: মনসুরাবাদ হাউজিং, ঢাকা-১২০৭ এজেড মাল্টিমিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।