শিকলে বেঁধে গণধর্ষণের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি

ডেস্ক এডিটর এজেড নিউজ বিডি, ঢাকা
শিকলে বেঁধে গণধর্ষণের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি
ফাইল ছবি:সংগৃহীত

রাজধানীর মোহম্মদপুরের একটি বাসায় তরুণীকে শিকলে বেঁধে ২৫ দিন আটকে রেখে দলবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থাসহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ।

বুধবার (৩ এপ্রিল) এক বিবৃতিতে মহিলা পরিষদ এ দাবি জানায়। সেইসঙ্গে এ ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তিরোধে প্রয়োজনাীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় এবং প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে।

নারী ও কন্যার প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে ব্যক্তি, পরিবার ও সমাজকে যুক্ত করে সমন্বিত সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার আহবানও জানিয়েছে সংগঠনটি।

মহিলা পরিষদ বিবৃতিতে জানিয়েছে, ঘটনা সূত্রে জানা যায়, বাবা-মায়ের বিচ্ছেদের পর তারা অন্যত্র বিয়ে করায় নির্যাতনের শিকার ওই তরুণী তার বড় বোনের বাসায় থাকছিল। ভগ্নিপতির মাধ্যমে মাসুদ নামে এক ব্যারিস্টারের সঙ্গে ওই তরুণীর পরিচয় হয়। পরবর্তীতে মাসুদ সালমা ও অনি নামে দুজনের সঙ্গে ওই তরুণীর পরিচয় করিয়ে দেয়। মাসুদের পরামর্শে মাস ছয়েক আগে মোহম্মদপুর থানার নবীনগর হাউজিংয়ের একটি বাড়ির চারতলায় ভাড়া নেয় নির্যাতনের শিকার ওই তরুণী।

কিছুদিন পার হয়ে যাওয়ার পর মাসুদ ওই তরুণীর সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়। পরে সালমা সান নামে এক যুবকের সঙ্গে ওই তরুণীর পরিচয় করিয়ে দেয়। পরিচয়ের সূত্র ধরে সান ওই তরুণীর সঙ্গে ভালো সম্পর্ক গড়ে তুলে। সান ওই তরুণীকে বিয়ে করার প্রলোভন দেখিয়ে একাধিকবার জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। গত ৫ মার্চ সান তার দুই বন্ধু হিমেল ও রফিককে নিয়ে ওই বাসায় যায়। ওই তরুণীকে সারপ্রাইজ দিবে বলে সান তার চোখ বন্ধ করতে বলে।

এ সুযোগে সালমা খাবার আনার কথা বলে রুম থেকে বের হয়ে যায়। সানের কথায় চোখ বন্ধ করলে তিনজন মিলে ওই তরুণীর হাত, পা, চোখ বেঁধে ফেলে এবং মুখে স্কচটেপ লাগিয়ে দেয়। তরুণীকে শিকল দিয়ে বেঁধে রাখার জন্য তারা হিমেলকে রেখে দোকানে চলে যায়। এ সময় মেয়েটিকে একা পেয়ে হিমেল তাকে ধর্ষণ করে। এভাবে ২৯ মার্চ পর্যন্ত ২৫ দিন তরুণীকে শিকল দিয়ে আটকে রেখে দলবদ্ধভাবে ধর্ষণ করা হয় ও সেই ধর্ষণের ভিডিও সালমা তার মোবাইল ফোনে ধারণ করত।

খাবার ও বাথরুমে যাওয়ার সময় সালমা শুধু পায়ের শিকল খুলে দিত। পরে আশপাশের লোকজন তরুণীর চিৎকার শুনে ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে পুলিশে খবর দিলে পুলিশ এসে ওই তরুণীকে উদ্ধার করে।

এজেড নিউজ বিডি ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

শিকলে বেঁধে গণধর্ষণের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি

শিকলে বেঁধে গণধর্ষণের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি
ফাইল ছবি:সংগৃহীত

রাজধানীর মোহম্মদপুরের একটি বাসায় তরুণীকে শিকলে বেঁধে ২৫ দিন আটকে রেখে দলবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থাসহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ।

বুধবার (৩ এপ্রিল) এক বিবৃতিতে মহিলা পরিষদ এ দাবি জানায়। সেইসঙ্গে এ ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তিরোধে প্রয়োজনাীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় এবং প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে।

নারী ও কন্যার প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে ব্যক্তি, পরিবার ও সমাজকে যুক্ত করে সমন্বিত সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার আহবানও জানিয়েছে সংগঠনটি।

মহিলা পরিষদ বিবৃতিতে জানিয়েছে, ঘটনা সূত্রে জানা যায়, বাবা-মায়ের বিচ্ছেদের পর তারা অন্যত্র বিয়ে করায় নির্যাতনের শিকার ওই তরুণী তার বড় বোনের বাসায় থাকছিল। ভগ্নিপতির মাধ্যমে মাসুদ নামে এক ব্যারিস্টারের সঙ্গে ওই তরুণীর পরিচয় হয়। পরবর্তীতে মাসুদ সালমা ও অনি নামে দুজনের সঙ্গে ওই তরুণীর পরিচয় করিয়ে দেয়। মাসুদের পরামর্শে মাস ছয়েক আগে মোহম্মদপুর থানার নবীনগর হাউজিংয়ের একটি বাড়ির চারতলায় ভাড়া নেয় নির্যাতনের শিকার ওই তরুণী।

কিছুদিন পার হয়ে যাওয়ার পর মাসুদ ওই তরুণীর সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়। পরে সালমা সান নামে এক যুবকের সঙ্গে ওই তরুণীর পরিচয় করিয়ে দেয়। পরিচয়ের সূত্র ধরে সান ওই তরুণীর সঙ্গে ভালো সম্পর্ক গড়ে তুলে। সান ওই তরুণীকে বিয়ে করার প্রলোভন দেখিয়ে একাধিকবার জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। গত ৫ মার্চ সান তার দুই বন্ধু হিমেল ও রফিককে নিয়ে ওই বাসায় যায়। ওই তরুণীকে সারপ্রাইজ দিবে বলে সান তার চোখ বন্ধ করতে বলে।

এ সুযোগে সালমা খাবার আনার কথা বলে রুম থেকে বের হয়ে যায়। সানের কথায় চোখ বন্ধ করলে তিনজন মিলে ওই তরুণীর হাত, পা, চোখ বেঁধে ফেলে এবং মুখে স্কচটেপ লাগিয়ে দেয়। তরুণীকে শিকল দিয়ে বেঁধে রাখার জন্য তারা হিমেলকে রেখে দোকানে চলে যায়। এ সময় মেয়েটিকে একা পেয়ে হিমেল তাকে ধর্ষণ করে। এভাবে ২৯ মার্চ পর্যন্ত ২৫ দিন তরুণীকে শিকল দিয়ে আটকে রেখে দলবদ্ধভাবে ধর্ষণ করা হয় ও সেই ধর্ষণের ভিডিও সালমা তার মোবাইল ফোনে ধারণ করত।

খাবার ও বাথরুমে যাওয়ার সময় সালমা শুধু পায়ের শিকল খুলে দিত। পরে আশপাশের লোকজন তরুণীর চিৎকার শুনে ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে পুলিশে খবর দিলে পুলিশ এসে ওই তরুণীকে উদ্ধার করে।

এজেড নিউজ বিডি ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Download
ঠিকানা: মনসুরাবাদ হাউজিং, ঢাকা-১২০৭ এজেড মাল্টিমিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।