গৃহবন্দি স্ত্রীকে বিষ খাওয়ানোর অভিযোগ ইমরান খানের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক এজেড নিউজ বিডি, ঢাকা
গৃহবন্দি স্ত্রীকে বিষ খাওয়ানোর অভিযোগ ইমরান খানের

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান অভিযোগ করে বলেছেন, তার স্ত্রী বুশরা বিবিকে বন্দিদশায় বিষ খাওয়ানো হয়েছিল।

মঙ্গলবার আদিয়ালা জেলে একটি মামলার শুনানির সময় একাধিক মামলায় জেলবন্দি ইমরান খান এ অভিযোগ করেন। খবর দ্য নিউজের।

তোষাখানা মামলায় বুশরাকে তার ব্যক্তিগত বাসভবনে বন্দি করার সময় বিষ প্রয়োগ করা হয়েছিল বলে অভিযোগ ইমরান খানের। পরে ওই বাসভবনটি একটি সাব-জেলে পরিণত করার নির্দেশিকা জারি করে পাকিস্তান সরকার। এখনও সেখানেই বন্দি আছেন বুশরা।

ইমরান খান জানান, তার স্ত্রীর ত্বক ও জিহ্বায় এখনো বিষের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার চিহ্ন রয়েছে। বিচারক নাসির জাভেদ রানার উদ্দেশে ইমরান বলেন, আমার স্ত্রীর যদি কোনো ক্ষতি হয়, তার জন্য পাকিস্তান সেনাপ্রধান (জেনারেল আসিম মুনির) এবং তার বাহিনীকে দায়ী করা উচিত। কারণ তারাই সব কিছু নিয়ন্ত্রণ করছিলেন।

প্রসঙ্গত, গত ৩১ জানুয়ারি তোশাখানা মামলায় পাকিস্তানের দুর্নীতি দমন পুনর্বিবেচনা সংক্রান্ত বিশেষ আদালত ইমরান এবং বুশরার ১৪ বছরের জেলের সাজা দিয়েছিল। সোমবার সেই সাজা কার্যকরের ওপর স্থগিরতাদেশ দিয়েছে ইসলামাবাদ হাইকোর্ট। তা নিয়েই মঙ্গলবার বিশেষ শুনানি ছিল আদিয়ালা জেলের বিশেষ আদালতে।

এজেড নিউজ বিডি ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

গৃহবন্দি স্ত্রীকে বিষ খাওয়ানোর অভিযোগ ইমরান খানের

গৃহবন্দি স্ত্রীকে বিষ খাওয়ানোর অভিযোগ ইমরান খানের

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান অভিযোগ করে বলেছেন, তার স্ত্রী বুশরা বিবিকে বন্দিদশায় বিষ খাওয়ানো হয়েছিল।

মঙ্গলবার আদিয়ালা জেলে একটি মামলার শুনানির সময় একাধিক মামলায় জেলবন্দি ইমরান খান এ অভিযোগ করেন। খবর দ্য নিউজের।

তোষাখানা মামলায় বুশরাকে তার ব্যক্তিগত বাসভবনে বন্দি করার সময় বিষ প্রয়োগ করা হয়েছিল বলে অভিযোগ ইমরান খানের। পরে ওই বাসভবনটি একটি সাব-জেলে পরিণত করার নির্দেশিকা জারি করে পাকিস্তান সরকার। এখনও সেখানেই বন্দি আছেন বুশরা।

ইমরান খান জানান, তার স্ত্রীর ত্বক ও জিহ্বায় এখনো বিষের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার চিহ্ন রয়েছে। বিচারক নাসির জাভেদ রানার উদ্দেশে ইমরান বলেন, আমার স্ত্রীর যদি কোনো ক্ষতি হয়, তার জন্য পাকিস্তান সেনাপ্রধান (জেনারেল আসিম মুনির) এবং তার বাহিনীকে দায়ী করা উচিত। কারণ তারাই সব কিছু নিয়ন্ত্রণ করছিলেন।

প্রসঙ্গত, গত ৩১ জানুয়ারি তোশাখানা মামলায় পাকিস্তানের দুর্নীতি দমন পুনর্বিবেচনা সংক্রান্ত বিশেষ আদালত ইমরান এবং বুশরার ১৪ বছরের জেলের সাজা দিয়েছিল। সোমবার সেই সাজা কার্যকরের ওপর স্থগিরতাদেশ দিয়েছে ইসলামাবাদ হাইকোর্ট। তা নিয়েই মঙ্গলবার বিশেষ শুনানি ছিল আদিয়ালা জেলের বিশেষ আদালতে।

এজেড নিউজ বিডি ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Download
ঠিকানা: মনসুরাবাদ হাউজিং, ঢাকা-১২০৭ এজেড মাল্টিমিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।