‘আপা গো আপা! পুরাটাই কপি মারলেন!’

বিনোদন ডেস্ক এজেড নিউজ বিডি, ঢাকা
‘আপা গো আপা! পুরাটাই কপি মারলেন!’
ছবি: সংগৃহীত

ঢাকাই সিনেমার আলোচিত দুই নায়িকা পরীমণি ও শবনম বুবলী সিনেমার বাইরেও তাদের ব্যক্তিগত জীবনে নিয়ে প্রায়ই আলোচনায় থাকেন। তবে এই দুজনের মধ্যে কখনো কোনো দ্বন্দ্বের খবর পাওয়া যায়নি। এমনকি দুজনে একসঙ্গে সিনেমা করবেন বলেও ঘোষণা এসেছিল। এর মধ্যেই বাগ্বিতণ্ডায় জড়ালেন এই দুই নায়িকা। তাও আবার নিজ নিজ সন্তানদের প্রতি আবেগ প্রকাশের মতো বিষয়কে কেন্দ্র করে।

ঘটনার শুরু শবনম বুবলীর একি ফেসবুক পোস্টকে কেন্দ্র করে। আজ বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) তার ছেলে শেহজাদ খান বীরের জন্মদিন। এ উপলক্ষে দিনটির প্রথম প্রহরে ছেলের উদ্দেশে একটি খোলা চিঠি ভিডিও আকারে পোস্ট করেছেন বুবলী। যেখানে তিনি আবেগপূর্ণ স্বরে বীরকে অনেক কথা বলেছেন তিনি।

বুবলী সেখানে বলেন, “২১ মার্চ, এই তারিখটি সারাজীবনের জন্য তুমি আমার কাছে শ্রেষ্ঠ করে দিলে বাবা। আমার বাপজান, আমার লক্ষ্মী বাপজান। এই দিনটিতে তুমি পৃথিবীতে এসেছিলে। এই সেই সেরা সময়, যখন তোমাকে আমি জন্ম দিয়েছিলাম। ঠিক তুমিও তখন আমাকে জন্ম দিয়েছো বাবা; মা হিসেবে আমার নতুন জন্ম।”

পাঁচ মিনিট ২৫ সেকেন্ড দৈর্ঘ্যের এই ভিডিও-চিঠিতে আরও অনেক বিষয়ে নিজের অনুভূতি প্রকাশ করেছেন।

ছেলের উদ্দেশে বুবলী বলেন, “সময় যাবে, তুমিও বড় হবে। মা-ও সারাজীবন এ পৃথিবীতে থাকবো না। কিন্তু তুমি আমার জানবাচ্চা সবসময় মায়ের দোয়ায় থাকবে। আমার সাহসী ছেলে। অনেক বড় হও জীবনে। ভালো মানুষ হও। তুমি শুধু আমার ছেলেই না বাবা, তুমি অনেক ভালো একটা বন্ধু।”

বুবলীর ভিডিও পোস্ট করার ঘণ্টা দেড়েক পর ফেসবুকে নিজের অ্যাকাউন্ট থেকে একটি স্ট্যাটাস দেন চিত্রনায়িকা পরীমণি। সেখানে তিনি লিখেছেন, “আপা গো আপা! পুরাটাই কপি মারলেন! কথা, মিউজিক লাইন, ভয়েস টোন, ডেলিভারি থেকে সব! কিন্তু আবেগ তো কপি করা যায় না আপা!”

স্ট্যাটাসে কারও নাম যদিও উল্লেখ করেননি পরীমণি। তবে যার উদ্দেশে বলেছেন, তিনি ঠিকই টের পেয়েছেন। তাই বিপরীত জবাব দিয়েছেন লম্বা বার্তায়। বুবলীর সেই বার্তা এরকম, “পাশের দেশে টলিউড বা বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে লাস্ট কয়েক বছর মিল থাকছে অধিকাংশ বিয়েতে। যেখানে বিয়ের ড্রেসের কালার, অ্যারেঞ্জমেন্ট, বর-কনের আসা থেকে শুরু করে অনেক প্রেজেন্টেশনেই মিল থাকছে। পৃথিবীতে অনেক সিনেমা আছে, যার গল্প অন্য গল্পের সাথে অনেক মিলে যায়। কাছাকাছি মেলে, একদম মেলে; এরকম বহু বহু জিনিস হচ্ছে দুনিয়াতে। তেমনি মা-সন্তান নিয়ে পৃথিবীতে অনেক ইমোশনাল ভিডিও এবং অডিও আছে, যার ভাষা একই কিন্তু এসবে পৃথিবীর কারও কোনও অসুবিধা নাই। শুধু এই সিন্ডিকেট চামচগুলোর অবস্থা দেখলে মনে হয়, যে এরাই দুই-একজন শুধু মা হয়েছে, আর কেউ মা হয়নি। তাদের শুধু লেবার পেইন হয়েছিল আর কারও হয়নি। তাদের পারিবারিক যুদ্ধ, সন্তানের স্মৃতি, জীবন সংগ্রাম, কষ্ট, ঘর গোছানো, খাওয়ানো সব কিছু স্বাভাবিক। কিন্তু আর কারও এরকম হয় না। তারাই খাবার খাওয়ার পর প্রেসার আসলে ফ্রেশরুমে দৌড় দেবে কিন্তু আর কেউ যেতে পারবে না। তারাই লাল, নীল, হলুদ রং পরবে আর কেউ পরতে পারবে না। তারাই হাসবে, কাঁদবে, ঘুমাবে, আর কেউ পারবে না। যদি আপনি পারেন তাহলে, আপনার আবেগ নাই, বিবেকও নাই, শুধু কপি আছে।”

বুবলী নিজের স্ট্যাটাসে পরীমণির নাম না নিলেও নেটিজেনদের বুঝতে বাকি নেই যে এটি তিনি পরীমণির উদ্দেশে দিয়েছেন। তবে ঘটনা এখানেই শেষ নয়। বুবলীর লম্বা বার্তার পর আরও তাচ্ছিল্যের সুর আসে পরীমণির দিক থেকে। সহশিল্পীকে রীতিমতো “শিক্ষিত বকরি” বলে কটাক্ষ করলেন তিনি।

পরীমণি পরবর্তী স্ট্যাটাসে লিখেছেন, “হিহিহি! একটি শিক্ষিত বকরির গরুর রচনা! কী লিখতে কী লিখতেছে বেচারি। চিপায় আটকাইলে মানুষ আবোল-তাবোল লজিক দিতে থাকে বুঝলাম। কিন্তু তাই বলে এই রকম আউলা-বাউলা কী কী সব লিখলো ভাই! পরে কখনও নিজে পড়ে নিজেই বুঝবে না যে, কী লিখেছিলো। আমি শিউর।”

অনেকের মনেই প্রশ্ন আসতে পারে যে, হঠাৎ ছেলের জন্মদিনে বুবলীর পোস্টে পরীমণি কেন খোঁচা দিবেন? এর পেছনে রয়েছে আরেক গল্প। গত বছরের ১০ আগস্ট ছিল পরীপুত্র শাহীম মুহাম্মদ রাজ্যর জন্মদিন। এ উপলক্ষে তিনি একটি খোলাচিঠি ভিডিও আকারে প্রকাশ করেন। ৪ মিনিট ১৩ সেকেন্ড দৈর্ঘ্যের সেই চিঠির সঙ্গে বুবলীর চিঠির ভাষা-স্বরগত কিছু সামঞ্জস্য রয়েছে। আর সে কারণেই মূলত “কপি” তথা নকলের অভিযোগ তুলেছেন পরীমণি।

তবে সন্তান ও মাতৃত্বের মতো সুন্দর বিষয় নিয়ে তারকাদের এমন কাদা ছোড়াছুড়ি মোটেই ভালোভাবে নেননি নেটিজেনদের বেশিরভাগ।

প্রসঙ্গত, প্রথমবারের মতো ওপার বাংলার সিনেমায় নাম লিখিয়েছেন পরীমণি। “ফেলুবকসি” নামের সিনেমাটির শুটিংয়ের জন্য কলকাতায় অবস্থান করছেন তিনি। পরীমণিকে সর্বশেষ পর্দায় দেখা গেছে গত ভালোবাসা দিবসে “বুকিং” নামের একটি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে। মিজানুর রহমান আরিয়ানের পরিচালনায় এতে তার বিপরীতে ছিলেন এবিএম সুমন। সম্প্রতি রেজা ঘটকের নির্মাণে “ডোডোর গল্প” সিনেমার কাজ সেরেছেন পরী। এছাড়া, অনম বিশ্বাসের পরিচালনায় একটি ওয়েব সিরিজেও কাজের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন তিনি।

অন্যদিকে, আসন্ন ঈদে বুবলী অভিনীত “দেয়ালের দেশ” ও “মায়া” নামের দুটি সিনেমা মুক্তি নিয়ে আলোচনা চলছে।সম্প্রতি যমুনা ইলেকট্রনিকস ও অটোমোবাইলসের শুভেচ্ছাদূত হিসেবে নাম লিখিয়েছেন বুবলী।

এর আগে, গত বছরের আগস্টে খবর আসে, “খেলা হবে” নামের একটি সিনেমায় একসঙ্গে কাজ করবেন পরীমণি ও বুবলী। যেটা নির্মাণ করবেন তানিম রহমান অংশু। প্রযোজনায় টিএম ফিল্মস। শুটিংয়ের জন্য ভারতে যাওয়ার অনুমোদনও নেওয়া হয়েছিল মন্ত্রণালয় থেকে। তবে অজ্ঞাত কারণে ছবিটির কাজ আর শুরু হয়নি।

এজেড নিউজ বিডি ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

‘আপা গো আপা! পুরাটাই কপি মারলেন!’

‘আপা গো আপা! পুরাটাই কপি মারলেন!’
ছবি: সংগৃহীত

ঢাকাই সিনেমার আলোচিত দুই নায়িকা পরীমণি ও শবনম বুবলী সিনেমার বাইরেও তাদের ব্যক্তিগত জীবনে নিয়ে প্রায়ই আলোচনায় থাকেন। তবে এই দুজনের মধ্যে কখনো কোনো দ্বন্দ্বের খবর পাওয়া যায়নি। এমনকি দুজনে একসঙ্গে সিনেমা করবেন বলেও ঘোষণা এসেছিল। এর মধ্যেই বাগ্বিতণ্ডায় জড়ালেন এই দুই নায়িকা। তাও আবার নিজ নিজ সন্তানদের প্রতি আবেগ প্রকাশের মতো বিষয়কে কেন্দ্র করে।

ঘটনার শুরু শবনম বুবলীর একি ফেসবুক পোস্টকে কেন্দ্র করে। আজ বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) তার ছেলে শেহজাদ খান বীরের জন্মদিন। এ উপলক্ষে দিনটির প্রথম প্রহরে ছেলের উদ্দেশে একটি খোলা চিঠি ভিডিও আকারে পোস্ট করেছেন বুবলী। যেখানে তিনি আবেগপূর্ণ স্বরে বীরকে অনেক কথা বলেছেন তিনি।

বুবলী সেখানে বলেন, “২১ মার্চ, এই তারিখটি সারাজীবনের জন্য তুমি আমার কাছে শ্রেষ্ঠ করে দিলে বাবা। আমার বাপজান, আমার লক্ষ্মী বাপজান। এই দিনটিতে তুমি পৃথিবীতে এসেছিলে। এই সেই সেরা সময়, যখন তোমাকে আমি জন্ম দিয়েছিলাম। ঠিক তুমিও তখন আমাকে জন্ম দিয়েছো বাবা; মা হিসেবে আমার নতুন জন্ম।”

পাঁচ মিনিট ২৫ সেকেন্ড দৈর্ঘ্যের এই ভিডিও-চিঠিতে আরও অনেক বিষয়ে নিজের অনুভূতি প্রকাশ করেছেন।

ছেলের উদ্দেশে বুবলী বলেন, “সময় যাবে, তুমিও বড় হবে। মা-ও সারাজীবন এ পৃথিবীতে থাকবো না। কিন্তু তুমি আমার জানবাচ্চা সবসময় মায়ের দোয়ায় থাকবে। আমার সাহসী ছেলে। অনেক বড় হও জীবনে। ভালো মানুষ হও। তুমি শুধু আমার ছেলেই না বাবা, তুমি অনেক ভালো একটা বন্ধু।”

বুবলীর ভিডিও পোস্ট করার ঘণ্টা দেড়েক পর ফেসবুকে নিজের অ্যাকাউন্ট থেকে একটি স্ট্যাটাস দেন চিত্রনায়িকা পরীমণি। সেখানে তিনি লিখেছেন, “আপা গো আপা! পুরাটাই কপি মারলেন! কথা, মিউজিক লাইন, ভয়েস টোন, ডেলিভারি থেকে সব! কিন্তু আবেগ তো কপি করা যায় না আপা!”

স্ট্যাটাসে কারও নাম যদিও উল্লেখ করেননি পরীমণি। তবে যার উদ্দেশে বলেছেন, তিনি ঠিকই টের পেয়েছেন। তাই বিপরীত জবাব দিয়েছেন লম্বা বার্তায়। বুবলীর সেই বার্তা এরকম, “পাশের দেশে টলিউড বা বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে লাস্ট কয়েক বছর মিল থাকছে অধিকাংশ বিয়েতে। যেখানে বিয়ের ড্রেসের কালার, অ্যারেঞ্জমেন্ট, বর-কনের আসা থেকে শুরু করে অনেক প্রেজেন্টেশনেই মিল থাকছে। পৃথিবীতে অনেক সিনেমা আছে, যার গল্প অন্য গল্পের সাথে অনেক মিলে যায়। কাছাকাছি মেলে, একদম মেলে; এরকম বহু বহু জিনিস হচ্ছে দুনিয়াতে। তেমনি মা-সন্তান নিয়ে পৃথিবীতে অনেক ইমোশনাল ভিডিও এবং অডিও আছে, যার ভাষা একই কিন্তু এসবে পৃথিবীর কারও কোনও অসুবিধা নাই। শুধু এই সিন্ডিকেট চামচগুলোর অবস্থা দেখলে মনে হয়, যে এরাই দুই-একজন শুধু মা হয়েছে, আর কেউ মা হয়নি। তাদের শুধু লেবার পেইন হয়েছিল আর কারও হয়নি। তাদের পারিবারিক যুদ্ধ, সন্তানের স্মৃতি, জীবন সংগ্রাম, কষ্ট, ঘর গোছানো, খাওয়ানো সব কিছু স্বাভাবিক। কিন্তু আর কারও এরকম হয় না। তারাই খাবার খাওয়ার পর প্রেসার আসলে ফ্রেশরুমে দৌড় দেবে কিন্তু আর কেউ যেতে পারবে না। তারাই লাল, নীল, হলুদ রং পরবে আর কেউ পরতে পারবে না। তারাই হাসবে, কাঁদবে, ঘুমাবে, আর কেউ পারবে না। যদি আপনি পারেন তাহলে, আপনার আবেগ নাই, বিবেকও নাই, শুধু কপি আছে।”

বুবলী নিজের স্ট্যাটাসে পরীমণির নাম না নিলেও নেটিজেনদের বুঝতে বাকি নেই যে এটি তিনি পরীমণির উদ্দেশে দিয়েছেন। তবে ঘটনা এখানেই শেষ নয়। বুবলীর লম্বা বার্তার পর আরও তাচ্ছিল্যের সুর আসে পরীমণির দিক থেকে। সহশিল্পীকে রীতিমতো “শিক্ষিত বকরি” বলে কটাক্ষ করলেন তিনি।

পরীমণি পরবর্তী স্ট্যাটাসে লিখেছেন, “হিহিহি! একটি শিক্ষিত বকরির গরুর রচনা! কী লিখতে কী লিখতেছে বেচারি। চিপায় আটকাইলে মানুষ আবোল-তাবোল লজিক দিতে থাকে বুঝলাম। কিন্তু তাই বলে এই রকম আউলা-বাউলা কী কী সব লিখলো ভাই! পরে কখনও নিজে পড়ে নিজেই বুঝবে না যে, কী লিখেছিলো। আমি শিউর।”

অনেকের মনেই প্রশ্ন আসতে পারে যে, হঠাৎ ছেলের জন্মদিনে বুবলীর পোস্টে পরীমণি কেন খোঁচা দিবেন? এর পেছনে রয়েছে আরেক গল্প। গত বছরের ১০ আগস্ট ছিল পরীপুত্র শাহীম মুহাম্মদ রাজ্যর জন্মদিন। এ উপলক্ষে তিনি একটি খোলাচিঠি ভিডিও আকারে প্রকাশ করেন। ৪ মিনিট ১৩ সেকেন্ড দৈর্ঘ্যের সেই চিঠির সঙ্গে বুবলীর চিঠির ভাষা-স্বরগত কিছু সামঞ্জস্য রয়েছে। আর সে কারণেই মূলত “কপি” তথা নকলের অভিযোগ তুলেছেন পরীমণি।

তবে সন্তান ও মাতৃত্বের মতো সুন্দর বিষয় নিয়ে তারকাদের এমন কাদা ছোড়াছুড়ি মোটেই ভালোভাবে নেননি নেটিজেনদের বেশিরভাগ।

প্রসঙ্গত, প্রথমবারের মতো ওপার বাংলার সিনেমায় নাম লিখিয়েছেন পরীমণি। “ফেলুবকসি” নামের সিনেমাটির শুটিংয়ের জন্য কলকাতায় অবস্থান করছেন তিনি। পরীমণিকে সর্বশেষ পর্দায় দেখা গেছে গত ভালোবাসা দিবসে “বুকিং” নামের একটি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে। মিজানুর রহমান আরিয়ানের পরিচালনায় এতে তার বিপরীতে ছিলেন এবিএম সুমন। সম্প্রতি রেজা ঘটকের নির্মাণে “ডোডোর গল্প” সিনেমার কাজ সেরেছেন পরী। এছাড়া, অনম বিশ্বাসের পরিচালনায় একটি ওয়েব সিরিজেও কাজের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন তিনি।

অন্যদিকে, আসন্ন ঈদে বুবলী অভিনীত “দেয়ালের দেশ” ও “মায়া” নামের দুটি সিনেমা মুক্তি নিয়ে আলোচনা চলছে।সম্প্রতি যমুনা ইলেকট্রনিকস ও অটোমোবাইলসের শুভেচ্ছাদূত হিসেবে নাম লিখিয়েছেন বুবলী।

এর আগে, গত বছরের আগস্টে খবর আসে, “খেলা হবে” নামের একটি সিনেমায় একসঙ্গে কাজ করবেন পরীমণি ও বুবলী। যেটা নির্মাণ করবেন তানিম রহমান অংশু। প্রযোজনায় টিএম ফিল্মস। শুটিংয়ের জন্য ভারতে যাওয়ার অনুমোদনও নেওয়া হয়েছিল মন্ত্রণালয় থেকে। তবে অজ্ঞাত কারণে ছবিটির কাজ আর শুরু হয়নি।

এজেড নিউজ বিডি ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Download
ঠিকানা: মনসুরাবাদ হাউজিং, ঢাকা-১২০৭ এজেড মাল্টিমিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।